ছাত্রীকে ‘মা’ ডেকে যৌন নির্যাতন

ঢাকা
যৌন নির্যতন   © প্রতীকী ছবি

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ‘মা’ ডেকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে এক গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা নিউ জলপাইগুড়ি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। বুধবার (১২ মে) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছেন ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার। 

অভিযুক্ত শিক্ষক বিধায়কচন্দ্র দাস স্থানীয়ভাবে সিপিএম নেতা হিসেবে পরিচিত। গত পৌর নির্বাচনে দলের হয়ে নির্বাচনেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি। 

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই ছাত্রীকে পড়ানোর সময়ে নানান বাহানায় প্রতিনিয়ত যৌন নির্যাতন করতেন ওই গৃহশিক্ষক বিধায়কচন্দ্র দাস। এমনকি এ ঘটনা কাউকে জানালে ওই ছাত্রীকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেন তিনি। ভয়ে ওই ছাত্রী কাউকে কিছুই বলেনি। তবে সম্প্রতি মেয়ে কাছে এসব জানতে পারেন তার মা। এ ঘটনার জানাজানি হলে ওই গৃহশিক্ষক আত্মগোপনে চলে গেছেন। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই ছাত্রী ৬ষ্ঠ শ্রেণী থেকেই ওই শিক্ষক বিধায়কচন্দ্রের নিকটে গণিত শিখতে যেতেন। ওই ছাত্রীকে তিনি ‘মা’ বলে সম্বোধন করতেন। এ বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে যৌন নির্যাতনের মাত্রা বেড়েছে। তাই ওই ছাত্রী শিক্ষকের নিকটে পড়তে যেতে চাইতো না। অনেকটা জোর করেই তাকে পাঠানো হতো। 

ওই ছাত্রীর মায়ের বরাতে বলা হয়, গত সপ্তাহে ওই ছাত্রী কোনোভাবেই পড়তে যেতে চাচ্ছিল না, এতে তার মা গালিগালাজ করলে ওই ছাত্রী কেঁদে ফেলেন এবং মায়ের নিকটে পুরো ঘটনা খুলে বলেন। এ ঘটনায় শিক্ষক বিধায়কচন্দ্র প্রথমে বিষয়টি অস্বীকার করলেও পরে বিষয়টি স্বীকার করে ক্ষতিপূরণ দিয়ে পুরো বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার কথা জানান।  

ওই ছাত্রীর বাবা জানান, যারা সমাজ গড়ার কারিগর, তারাই যদি এমন করেন, তাহলে মানুষ কাকে ভরসা করবে? প্রলোভন দেখিয়ে পুরো ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি। আমার মেয়ের আজ এ ঘটনা সঙ্গে ঘটেছে, অন্য মেয়ের সঙ্গেও আগামীতে এ ঘটনা ঘটতে পারে। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত পলাতক। তাকে খুঁজছে পুলিশ।


x

সর্বশেষ সংবাদ