এক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল তিন দম্পতির

এক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল তিন দম্পতির
এক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল তিন দম্পতির  © সংগৃহীত

গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানি উপজেলায় ঢাকা-খুলনা সড়কে বাস, প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলের এক ত্রিমুখী সংঘর্ষে আট জন প্রাণ হারিয়েছেন। এরা সবাই তিনটি পরিবারের সদস্য। কাশিয়ানি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ রায়হান বলেন, দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই সাতজন ও পরে হাসপাতালে একজন মারা গেছেন।

মাসুদ রায়হান জানান, ত্রিমুখী সংঘর্ষের মধ্যে প্রাইভেট কারে ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে বেরিয়েছিলেন এক দম্পতি। আরেক দম্পতি মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরছিলেন। অন্য দম্পতি ব্যস্ত ছিলেন সড়কের পাশে ধানমাড়াইয়ের কাজে। এ দুর্ঘনা তাদের সবার মৃত্যু হয়।

ধারণা করা হচ্ছে ধান মাড়াইয়ের কারণে ধান গাছ ও পাতায় সড়কের ওই জায়গাটি পিচ্ছিল হয়ে পড়ে, ফলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খুলনা থেকে ঢাকাগামী একটি বাস, ঢাকা থেকে গোপালগঞ্জগামী প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে আজ শনিবার বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ফুকরা ইউনিয়নের দক্ষিণ ফুকরা এলাকায় যাত্রীবাহী বাস, ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৩০ জন। তাঁদের মধ্যে ২০ জনকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: মাকে দেখা হলো না, স্ত্রী-সন্তানসহ মারা গেলেন বারডেমের চিকিৎসক

দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে একই পরিবারের তিনজন রয়েছেন। তাঁরা হলেন- ঢাকা বারডেম হাসপাতালের চিকিৎসক ও গোপালগঞ্জ শহরের বটতলা এলাকার প্রফুল্ল কুমার সাহার ছেলে বাসুদেব কুমার সাহা (৫২), তাঁর স্ত্রী শিবানী সাহা (৪৮) ও ছেলে আহ্‌ছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী স্বপ্নিল সাহা (১৯)। চিকিৎসক বাসুদেব সাহার ব্যক্তিগত গাড়ির চালক আজিজুর ইসলামও (৪৪) নিহত হয়েছেন।

নিহত বাকি চারজন হলেন কাশিয়ানী উপজেলার ফুকরা ইউনিয়নের দক্ষিণ ফুকরা গ্রামের পেয়ার আলী মোল্লার ছেলে ফিরোজ মোল্লা (৪৮), তাঁর স্ত্রী রুমা বেগম (৪০), একই গ্রামের জিন্দার ফকিরের ছেলে অনীক বাবু (২৮) ও অনীকের নববিবাহিত স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার (১৯)। ফিরোজ ও রুমা সড়কে ধানমাড়াইয়ের কাজ করছিলেন। অনীক ও ইয়াসমিন মোটরসাইকেলে কাশিয়ানী থেকে বাড়িতে ফিরছিলেন।

ভাটিয়াপাড়া হাইওয়ে থানা পুলিশের এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা রাজিব পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের কাশিয়ানী উপজেলার মিল্টন বাজার এলাকায় পৌঁছালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা প্রাইভেটকার ও কাশিয়ানী সদর থেকে ছেড়ে আসা মোটরসাইকেলের ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়।

তিনি জানান, এতে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে-মুচড়ে সড়কের পাশে ধান মাড়াইয়ের কাজ করা শ্রমিক ও মেশিনের ওপর গিয়ে পড়ে। প্রাইভেটকারে থাকা চার জন ও ধানের কাজ করা স্বামী-স্ত্রী সেখানেই নিহত হন। আর সড়কে মোটরসাইকেলে থাকা নবদম্পতির প্রাণ যায়।


x