টাইমস হায়ার এডুকেশন র‌্যাংকিংয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় যবিপ্রবি

ঢাবির
যবিপ্রবি  © সংগৃহীত

বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ র‌্যাংকিং হিসেবে স্বীকৃত টাইমস হায়ার এডুকেশন (টিএইচই) ইউনিভার্সিটি ইমপ্যাক্ট র‍্যাংকিং ২০২২-এ দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি)। ৫৩.৭ নম্বর পেয়ে যবিপ্রবি বিশ্বে ৮০১-১০০০ এর মধ্যে এবং বাংলাদেশের পাবলিক-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে নবম স্থানে রয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) যুক্তরাজ্যের লন্ডনভিত্তিক টাইমস হায়ার এডুকেশন (টিএইচই) ইউনিভার্সিটি ইমপ্যাক্ট র‍্যাংকিং-২০২২ ঘোষণা করা হয়। দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে যবিপ্রবির উপরে রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। এ তালিকায় দেশের মোট ১২টি সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় জায়গা করে নিয়েছে। তবে পাবলিক-বেসরকারির মধ্যে দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় টিএইচই ইউনিভার্সিটি ইমপ্যাক্ট র‍্যাংকিং ২০২২-এ এক নম্বরে রয়েছে।  

এ বিষয়ে যবিপ্রবির ইমপ্যাক্ট র‌্যাংকিং কমিটির সদস্য সচিব ও ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মেহেদী হাসান বলেন, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ১৭টি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে এই র‌্যাংকিং করা হয়। দিনদিন যবিপ্রবি এই ১৭টি লক্ষ্যমাত্রা পূরণে অনেক এগিয়ে যাচ্ছে, সামনের দিনগুলোতে আরও উন্নয়ন সম্ভব হবে। 

তিনি জানান, সামনের মাসেই কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং এ যবিপ্রবির অবস্থান জানা যাবে। এই দুটি র‌্যাংকিং-এর সমন্বয়ে আগামী বছর বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে যবিপ্রবির অবস্থান জানতে পারবো। 

যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, শুধুমাত্র বাংলাদেশ নয়, বিশ্বে যবিপ্রবি একটি ভালো অবস্থানে পৌঁছে যাচ্ছে। একটি নবীন বিশ্ববিদ্যালয় হিসাবে অনেক কিছুই আমাদের নেই, সেইগুলো পূরণ করা নিয়ে আমরা কাজ করছি। একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে কিছু আন্তর্জাতিক আইন থাকতে হয়, সেগুলো নিয়েও যবিপ্রবি কাজ করছে। যখন যবিপ্রবির ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) চালু হবে, শিক্ষার্থীদের কার্যক্রম আরও বাড়বে, যার প্রভাব বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে দেখা যাবে। 

তিনি আরও বলেন, সাম্প্রতিক বছরে আমাদের সবচেয়ে বেশি অগ্রগতি হয়েছে গবেষণায়। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা গবেষণায় আরও এগিয়ে যাবে। যবিপ্রবি পরিবার ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করলে আশা করি, আগামী তিন বছরে বাংলাদেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে যবিপ্রবি আত্মপ্রকাশ করবে। 


x