আবরার হত্যা মামলা: আসামিপক্ষের আইনজীবীদের আদালত বর্জন

আদালত
আবরার ফাহাদ  © ফাইল ফটো

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আসামিপক্ষের আইনজীবীরা আদালত বর্জন করেছেন।

বুধবার (২১ অক্টোবর) ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালতে সাক্ষ্য গ্রহণকালে এ কাণ্ড ঘটে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, আজ বেলা ১২টার পর মামলার কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথমে শেরেবাংলা হলের সিনিয়র সুপারভাইজার মতিউর রহমানকে জেরা শেষ করেন আসামিপক্ষের আইনজীবীর। এরপর চকবাজার থানার এএসআই গোলাম মোস্তফার সাক্ষ্য দেন। তবে মাঝে একঘণ্টা বিরতি দিয়ে গোলাম মোস্তফার সাক্ষ্য শেষ হয় বিকেল ৫টার দিকে। এসময় আসামিপক্ষের আইনজীবী আমিনুল গণি টিটোসহ কয়েকজন আইনজীবী আজকের মত কার্যক্রম মূলতবি রাখার মৌখিক আবেদন করেন।

আইনজীবরা বলেন, আমরা ক্লান্ত আর আদালতে অনেক গরম। অস্বস্তিবোধ করছি। দয়া করে আজকের মতো কার্যক্রম মূলতবি করেন। তখন বিচারক বলেন, না হবে না। সাক্ষ্য গ্রহণ চলবে। আইনজীবীরা বলেন, তাহলে সাক্ষী এএসআই রবিউল আলমের জবানবন্দি নেন। আমরা কাল জেরা করবো। ৫টা ১০ মিনিটে রবিউল আলমের জবানবন্দি শেষ হয়।

এরপর বিচারক আইনজীবীদের বলেন, জেরা শুরু করেন। তখন আইনজীবীরা বলেন, আজ থাক আমরা কাল করবো। তখন বিচারক বলেন, না আজই শেষ করেন। তখন আইনজীবীরা বলেন, তাহলে আপনি করেন, আমরা চলে যায়। একথা বলে ইশতিয়াক আহম্মেদ মুন্নার আইনজীবী ব্যতীত অন্যান্য আসামিদের আইনজীবীরা আদালত বর্জন করেন। মুন্নার আইনজীবী রবিউল আলমকে জেরা শেষ করেন।

এসময় বিচারক মুন্না ব্যতীত ২১ আসামির কাছে জানতে চান, তারা জেরা করবে কি না? তখন তারা করবে না বলে জানান। আগামিকাল বৃহস্পতিবার মামলাটির সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে।

এ নিয়ে মামলাটিতে ৬০ জন সাক্ষীর মধ্যে আবরারের বাবা বরকত উল্লাহসহ ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হলো। মামলাটিতে ৫ অক্টোবর থেকে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়েছে। সরকারি ছুটি ব্যতীত চলছে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ