প্রমিজের মৃত্যুর পর দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন বান্ধবী, সুইসাইড নোট উদ্ধার

প্রমিজ নাগ
প্রমিজ নাগ  © টিডিসি ফটো

খুলনার নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলোজির শিক্ষার্থী প্রমিজ নাগের মৃত্যুর পর পুলিশ তদন্তে তার ঘরের কিছু স্থানে রক্তের দাগ খুঁজে পেয়েছে। প্রমিজের মাথায় আঘাতের চিহ্নও ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, প্রমিজের মৃত্যুর পর সিসিটিভির ফুটেজে তার বান্ধবীকে দ্রুত স্থান ত্যাগ করতে দেখা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, প্রমিজের ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে বাবা-মাকে উদ্দেশ্য করে লেখা রয়েছে, সে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেছে। তাকে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে দিও। ওই টাকা নিয়ে সে ভালো থাকুক। গোটা ঘটনাটি বিশ্লেষণ করে মৃত্যুটিকে রহস্যজনক বলছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ভাড়া বাসায় নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের আত্মহত্যা

এর আগে, গতকাল বুধবার (২২ জুন) রাতে খুলনা নগরীর গোবরচাকা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে এলাকাবাসী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি পিরোজপুর নাজিরপুরে। তিনি জ্যোতির্ময় নাগের ছেলে।

নগরীর সোনাডাঙ্গা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আতিক আহমেদ চৌধুরী জানান, লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য খুমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে লাশের ময়নাতদন্ত হওয়ার কথা রয়েছে। প্রমিজকে শেষবারের মতো দেখতে সকাল থেকে হাসপাতাল মর্গের সামনে ভিড় করে তার সহপাঠীরা।

আরও পড়ুন: প্রমিজ নাগের ‘শেষ হাসি’

কমিশনার আরও জানান, একই বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক সিনিয়র ছাত্রীর সাথে প্রমিজের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। ছাত্রীটি বিত্তবান পরিবারের হওয়ায় প্রমিজকে সে বিভিন্ন সময় অর্থ সহায়তার পাশাপাশি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন কিনে দেয়। বুধবার দুপুর থেকে তারা একই সাথে অবস্থান করছিলো। সন্ধ্যায় তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। প্রমিজকে যে মারধর করা হয়েছে তার আলামত মিলেছে।

তিনি জানান, ঘটনার পর থেকে মেয়েটি আত্মগোপনে রয়েছে। তাকে খুঁজতে পুলিশ কাজ করছে। এদিকে ছেলের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় প্রমিজের পিতা জ্যোতিময় নাগ বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।


x