বৃদ্ধা মাকে নিষ্ঠুরভাবে পেটাচ্ছে কাজের মেয়ে, ধরা সিসি ক্যামেরায়

 বৃদ্ধাকে নির্যাতনের দৃশ্য
সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত বৃদ্ধাকে নির্যাতনের দৃশ্য  © সংগৃহীত

গৃহকর্মীর দায়িত্বে বৃদ্ধা মাকে রেখে জীবিকার জণ্য বাইরে গিয়েছিলেন সন্তানরা। সেই গৃহকর্মীর কারণেই জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে মা। রাজধানীর মালিবাগে এমন নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বিলকিস বেগম নামে এক বৃদ্ধা নারী। মারধরের পর নগদ টাকা, স্বর্ণসহ পালিয়ে যায় সে। এর সিসি ক্যামেরার ফুটেজসহ একটি বেসরকারি সংবাদভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেলের প্রতিবেদনে এ দৃশ্য দেখা গেছে।

গত সোমবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে কিডনীসহ নানা সমস্যায় ভোগা বিলকিস বেগম শুয়ে ছিলেন বিছানায়। তার সেবা করছিলেন রেখা নামের ওই গৃহকর্মী। কিন্তু পরে তা রুপ নেয় নির্মমতায়, তার ভয়ংকর পরিকল্পনা বের হয়। জোর করে বৃদ্ধাকে বাথরুমে ঢোকায় রেখা, খুলে ফেলে তার শরীরের সব কাপড়।

শীতের মধ্যেই তার গায়ে ঢালা হয় ঠাণ্ডা পানি। এরপর বেরিয়ে আসে তার আসল চেহারা। যে লাঠি ভর করে ওই বৃদ্ধ চলাফেরা করতেন, তা দিয়েই শুরু হয় মারধর। মার খেয়ে ফ্লোরে পড়ে গেলেও চলে একের পর এক আঘাত। এমনকি আঘাত করা হয় মাথায়। পরে হাতের কাছে যা পান, তা দিয়েই চলে নির্যাতন।

একপর্যায়ে আলমারির চাবির জন্য তার বুকে উপর চেপে বসে রেখা। তেড়ে আসে বটি হাতে। একসময় বিলকিস বেগমের গলা থেকে স্বর্ণের চেইন খুলে পরে আয়েশি ভঙ্গিতে। দেখে নেন হাতের বালা। তারপর চাবির সন্ধান পেয়ে গৃহকর্মী রেখা রক্তাক্ত বৃদ্ধাকে টেনে নিয়ে আলমারি খুলে দিতে বাধ্য করে। ওই ড্রয়ার খুলে স্বর্ণ, টাকা, মোবাইল নেয় রেখা।

একসময় বিবস্ত্র বৃদ্ধা রক্ত থামাতে মাথায় কাপড় বেঁধে নেন। সবশেষে রেখা খুলে নেয় টিভি। সবকিছু গুছিয়ে নিয়ে বেরিয়ে যায় সে। সব দৃশ্যই ধরা পড়ে সিসি ক্যামেরায়।

স্বামীর মৃত্যুর পর দুই ছেলে ও দুই মেয়েকে ওই বাড়িতেই বসবাস করে আসছিলেন বিলকিস বেগম। আর মেয়ে মেহবুবা তার মাকে হাসপাতালে ভর্তির পর পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন। পুলিশ তাকে ধরতে তৎপরতা শুরু করেছে বলে জানিয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ