চবির স্থগিত পরীক্ষা শুরু, বন্ধই থাকছে হল

চট্টগ্রামে বিশ্ববিদ্যালয়
চট্টগ্রামে বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ছবি

করোনার কারণে স্থগিত হওয়া পরীক্ষাসমূহ সশরীরে নেওয়া শুরু করেছে চট্টগ্রামে বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)। আজ বুধবার (০৯ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ১৫-১৬ সেশনের অনার্স ফাইনাল সেমিস্টারের স্থগিত পরীক্ষার নেওয়ার মধ্যদিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তবে পরীক্ষা শুরু হলেও বন্ধই থাকছে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের আরো বেশকিছু বিভাগে স্থগিত হওয়া পরীক্ষাসমূহ গ্রহণের তারিখ ও রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে। নৃবিজ্ঞান বিভাগ ১০ জুন থেকে সম্মান শেষ বর্ষের স্থগিত পরীক্ষা নেয়ার রুটিন প্রকাশ করেছে।

ইংরেজি বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা শুরু হবে ১৩ জুন থেকে। রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগে ১৬ জুন থেকে পরীক্ষা শুরু হবে। মার্কেটিং ২৬তম ব্যাচের পরীক্ষা ২১ জুন থেকে শুরু হবে। অর্থনীতি বিভাগের মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা ২৮ জুন থেকে শুরু হবে হওয়ার কথা রয়েছে।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের স্থগিত ও নিয়মিত পরীক্ষাগুলোর বিষয়ে আগামী ১৫ জুন তারিখের পর সিদ্ধান্ত জানাবে প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী আকাশ মজুমদার বলেন, আমরা এতদিন খুবই ডিপ্রেশনে ছিলাম। পরীক্ষার সিদ্ধান্তে মনে হচ্ছে এখন নিশ্বাস নিতে পারবো। আমরা খুবই বাজে অবস্থায় পড়ে গেছিলাম।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাবসায় প্রসাশন অনুষদের ডিন প্রফেসর এস এম সালামত উল্ল্যা ভুঁইয়া বলেন, মার্কেটিং বিভাগে কয়েকটি পরীক্ষা বাকি ছিল। আমরা এখন স্থগিত পরীক্ষাগুলো নিয়ে নিচ্ছি। আজকের পরীক্ষায় উপস্থিতির হার শতভাগ ছিল। ১৫ জুন তারিখ মিটিংয়ের পর বাকি পরীক্ষাগুলোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. এস এম মনিরুল হাসান দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, স্থগিত পরীক্ষাগুলো নেওয়ার জন্য ইউজিসির অনুমতি রয়েছে। শিক্ষার্থীদের কল্যাণের কথা ভেবে পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে আমরা সকল ফেকাল্টির ডিন ও চেয়ারম্যানকে অনুরোধ জানিয়েছি। তাই উনারা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে এ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খোলার ‍সুযোগ নেই।

এর আগে, গত ২২ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ১৭ মে হল এবং ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ঘোষণা দেয়। একই সাথে বলা হয় বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পরই সব পরীক্ষা নেওয়া হবে। এই ঘোষণার সাথে একমত পোষণ করে ২৫ ফেব্রুয়ারি চবি কর্তৃপক্ষ সকল ধরনের পরীক্ষা স্থগিত করে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ