রাবির ‘বি’ ইউনিটের সংশোধিত ফল নিয়েও বিতর্ক

ভর্তি পরীক্ষা
ভর্তি পরীক্ষার ফল  © ফাইল ছবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভর্তি পরীক্ষার ‘বি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিতর্কের মুখে একবার ফল সংশোধন করা হলেও বিষয়টি নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে নতুন বিতর্ক। প্রথমবার প্রকাশিত ফলে ২৩তম অবস্থানে থাকা শিক্ষার্থীর সংশোধিত ফলে স্থান ২ হাজার ২০৫তম এবং ৫৩তম হওয়া এক পরীক্ষার্থী সংশোধিত ফলে হয়েছেন অকৃতকার্য।

এছাড়া প্রথমবার প্রকাশিত ফলে টানা এক হাজার ৬৫৯ জন শিক্ষার্থীকে অনুপস্থিত দেখানো হয়। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে, সংশোধিত ফলটি চূড়ান্ত ও নির্ভুল।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার চিফ কো-অর্ডিনেটর ও ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (আইবিএ) পরিচালক অধ্যাপক জিনাত আরা বেগম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে ফল প্রকাশ করা হয়।

ওই ফল প্রকাশের পর তীব্র বিতর্ক শুরু হয়। সেখানে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার রোল নম্বর-৭২৩৫০ থেকে ৭৪০০৯ পর্যন্ত এক হাজার ৬৫৯ জনের ফলাফলে অনুপস্থিত দেখানো হয়। এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হলে কর্তৃপক্ষ ওয়েবসাইট থেকে আগের ফলটি তুলে নিয়ে পরে সংশোধিত ফল প্রকাশ করে। এতেও শুরু হয় বিতর্ক।

সংশোধিত ফলে দেখা যায়, ৭৫২৯৩ রোল নম্বরধারী শিক্ষার্থী তমাল মজুমদার ২৩ দশমিক ৯৫ পেয়ে অকৃতকার্য হয়েছেন। অথচ প্রথমবার প্রকাশিত ফলে তার অবস্থান ছিল ৫৩তম এবং তিনি ৭৭ দশমিক ৬০ নম্বর পেয়েছেন বলেও ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়। অন্যদিকে প্রথমবার প্রকাশিত ফলে ৭৬৫৯৬ রোল নম্বরধারী ইমু ৮০ দশমিক ৩০ পেয়ে ২৩তম হন। তবে সংশোধিত ফলে তার অবস্থান ২ হাজার ২০৫। তিনি পেয়েছেন ৪৯ দশমিক ৬০ নম্বর। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক এম বাবুল ইসলাম বলেন, প্রথমবার ফল প্রকাশে কিছু কারিগরি ত্রুটি ছিল। সেগুলো সংশোধন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার চিফ কো-অর্ডিনেটর অধ্যাপক জিনাত আরা বেগম বলেন, কিছু কারিগরি ত্রুটির কারণে আগে প্রকাশিত ফল বাতিল করে সংশোধিত ফল প্রকাশিত হয়েছে। এটিই কার্যকর হবে। কোনো শিক্ষার্থীর নম্বর সংক্রান্ত সমস্যা থাকলে যোগাযোগ করলে আমরা পুনরায় মিলিয়ে দেখব। তবে সংশোধিতটিই চূড়ান্ত।

রাবি উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া থেকে ফল প্রকাশ, ভর্তি সবকিছুরই দেখভাল করেন বিভিন্ন অনুষদের দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিন কিংবা ইনস্টিটিউট প্রধানরা। সেজন্য সঠিক কারণটি দায়িত্বপ্রাপ্তরা বলতে পারবেন। আমাকে জানানো হয়েছে, কারিগরি ত্রুটির কারণে কয়েকজনের অনুপস্থিত এসেছিল, সেটি সংশোধন করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে কথা বলব।


মন্তব্য