‘সত্য খবর’ নামে মিয়ানমার আর্মির পেজ মুছে দিল ফেসবুক

‘সত্য খবর’ নামে মিয়ানমার আর্মির পেজ মুছে দিল ফেসবুক
  © সংগৃহীত

‘সত্য খবর’ নামে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর মূল ফেসবুক পেজ মুছে দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। সংঘাতে উস্কানিসহ নীতিমালা বহির্ভুত কন্টেন্ট শেয়ার করায় পেজটি বন্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কোম্পানিটি। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ কথা জানিয়েছে।

এক বিবৃতিতে ফেসবুকের প্রতিনিধিত্বকারী প্রতিষ্ঠান বলেছে, ‘ক্ষতিসাধন ও সংঘাতে উস্কানিসহ আমাদের কমিউনিটি স্টান্ডার্ডের শর্ত বারবার ভঙ্গ করায় ফেসবুক থেকে মিয়ানমার আর্মির টাটমাডো ট্রু নিউজ ইনফরমেশন টিম পেজ মুছে দেওয়া হয়েছে।’

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে টাটমাডো নামে ডাকা হয়। রোববার থেকে টাটমাডো’র ট্রু নিউজ পেজটি দেখা যাচ্ছে না। তবে এ নিয়ে কথা বলতে রয়টার্স ফোন করলেও কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।

এর আগে ফেসবুক ২০১৮ সালে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান এবং সাম্প্রতিক সামরিক অভ্যুত্থানের নেতা সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংসহ আরো ১৯ জন জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে নিষিদ্ধ করেছিল। এর পাশাপাশি সমন্বিতভাবে অসত্য তথ্য পরিবেশন করার কারণে সামরিক বাহিনীর সদস্যদের পরিচালিত কয়েকশ ফেসবুক পেজ ও অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

এ ছাড়া মিয়ানমারে গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের আগে ৭০টি ভুয়া অ্যাকাউন্ট ও পেজের একটি সংঘবদ্ধ নেটওয়ার্ক বন্ধ করা হয়েছে বলে ঘোষণা দেয় ফেসবুক। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির পক্ষ থেকে সেসময় বলা হয়েছিল, এসব অ্যাকাউন্ট ও পেজ থেকে সেনাবাহিনী সম্পর্কে ইতিবাচক কনটেন্ট কিংবা সুকি ও তাঁর দলের বিরুদ্ধে সমালোচনামূলক পোস্ট দেওয়া হতো।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনী গত ১ ফেব্রুয়ারি এক অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে দেশটির নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে। এর প্রতিবাদে দেশজুড়ে শুরু হয় জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ-আন্দোলন। বিক্ষোভে পুলিশের ছোড়া গুলিতে দুজন নিহত হন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী দেশটির নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে নেয়। ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির নেত্রী অং সান সু চি ও অন্য শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার করে সামরিক বাহিনী। এর প্রতিবাদে দেশটিতে বিক্ষোভ চলছে।


মন্তব্য