পোর্ট ফোলিও সিস্টেমে পরীক্ষা দিতে চায় ইংলিশ মিডিয়ামের শিক্ষার্থীরা

ইংলিশ মিডিয়াম
ইংলিশ মিডিয়ামের শিক্ষার্থীরা  © ফাইল ছবি

২০২২ সালের ইংলিশ মিডিয়ামের ‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেলের শিক্ষার্থীরা পোর্ট ফোলিও অব এভিডেন্স পদ্ধতিতে পরীক্ষা দিতে চায়। এ দাবিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর আবেদন জমা দিয়েছেন তারা।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কার্যালয়ে এই আবেদন জমা দেওয়া হয়। ইংলিশ মিডিয়ামের শিক্ষার্থীদের পক্ষে এতে স্বাক্ষর করেছেন রিহান খান।

আবেদনপত্রে শিক্ষার্থীরা জানান, বৈশ্বিক করােনা মহামারির কারণে কোটি-কোটি শিক্ষার্থী পড়াশােনা ও ক্লাস থেকে বঞ্চিত হয়েছে। করােনাকালীন সময়ে বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সকল দেশে অনলাইনে বাসায় বসে ক্লাস ও পরীক্ষা হয়েছে। আমরাও বাসায় বসেই ক্লাস-পরীক্ষা দিয়েছি। এতে করে যথাযথ পড়াশােনা ও অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারিনি। যে মানে পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার দরকার ছিল, সেই মানে প্রস্তুতি নিতে পারিনি। করােনাকালীন সময়ে সকল ক্লাস-পরীক্ষা অনলাইন মাধ্যমে হওয়ায় এখন এই পরীক্ষাও অনলাইনে হওয়াটাই যুক্তিযুক্ত।

তারা জানান, ব্রিটিশ কাউন্সিল ও কেমব্রিজ, শ্রীলংকা, মায়ানমারসহ বিভিন্ন দেশের পরীক্ষার্থীদের সিলেবাস শর্ট করে দিয়ে কোথাও কোথাও অ্যাসাইনমেন্ট ভিত্তিক পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। কিন্তু দূর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, বাংলাদেশের প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থী এই সুযােগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। ভবিষ্যতে তারা উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে ফলাফলের দিক থেকে পিছিয়ে যাবে। টিকতে পারবে না বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কলারশিপসহ প্রতিযােগীতামূলক পরীক্ষায়।

আরও পড়ুন: একই বিষয়ে পড়াশোনা করেও টিউশন ফি ভিন্ন

শিক্ষার্থীরা বলেন, করোনার কারণে এসএসসি এবং এইচএসসির সিলেবাস শর্ট করে বিশেষ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এদেশের নাগরিক হয়েও ইংলিশ মিডিয়ামের শিক্ষার্থী হওয়ায় আমরা এ জাতীয় সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। ব্রিটিশ কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শর্ট সিলেবাসে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না। তবে পোর্ট ফোলিও পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিতে হলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি লাগবে।

এই অবস্থায় ও লেভেল এবং এ লেভেল পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে পোর্টফোলিও পদ্ধতিতে পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিনিধির মাধ্যমে ব্রিটিশ কাউন্সিল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার বিনীত অনুরোধ করছি।


x

সর্বশেষ সংবাদ