করোনা রোধে ‘কারফিউ’ এর পক্ষে বিশেষজ্ঞরা

কারফিউ
প্রতীকী ছবি

দেশের মানুষদের ‘লকডাউনের’ প্রকৃত অর্থ বোঝানো যাচ্ছে না। এই অবস্থায় ১৪ দিনের জন্য ‘কারফিউ লকডাউন’ দেয়া উচিত। এই ১৪ দিন হয়তো দিন আনে দিন খায় এমন মানুষের খেয়ে বাঁচতে সমস্যা হবে। তবে সমাজের বৃত্তবানরা এগিয়ে আসলে তাদের সমস্যারও সমাধান হয়ে যাবে।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) করোনা রোধে করনীয় নিয়ে গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সায়েদুর রহমান খসরু।

তিনি বলেন, প্রকৃত অর্থে যদি দেশে লকডাউন কার্যকর করতে হয়, তাহেলে কারফিউ লকডাউনের কোনো বিকল্প নেই। বিশেষ করে বেশি সংক্রমণ প্রবণ এলাকাগুলোতে এই ব্যবস্থা কার্যকর করতে হবে। কেননা লকডাউন মানে যে ঘরবন্দী থাকা এটা সাধারণ মানুষকে বোঝানো সম্ভব হচ্ছে না। এই মুহূর্তে কারফিউ লকডাউন না দিলে সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পাবে।

জীবিকার তাগিদে মানুষের ঘরের বাইরে আসা প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে জীবনের জন্য জীবিকা, জীবিকার জন্য জীবন নয়। ১৪ দিতন ঘরবন্দী থাকলে অনেকেরই কষ্ট হবে। তবে তাদের জন্য যদি সমাজের বিত্তবানরা কিংবা সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সহায়তা প্রকল্প হাতে নেয়া হয়, তাহলে এই সমস্যারও সমাধান হয়ে যাবে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ