ঢাবি ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র সংগ্রহ যথাসময়ে শুরু হবে

ভর্তি পরীক্ষা
২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা  © টিডিসি ফটো

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা যথাসময়ে সংগ্রহ করতে পরবে জানিয়েছে অনলাইন ভর্তি কমিটি। তবে কোনো ধরনের অসুবিধার কারণে যদি যথাসময়ে দেওয়া সম্ভব না হয় তাহলে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা-পরামর্শ করেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

আরও পড়ুন: চরম অনিশ্চয়তায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা

আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১০ জুলাই বেলা ৩টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির ওয়েবসাইট থেকে প্রবেশপত্র সংগ্রহ করা যাবে। তবে বর্তমানে কঠোর লকডাউনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অফিস বন্ধ থাকায় যথাসময়ে প্রবেশপত্র দেওয়া হবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।

এ বিষেয়ে জানতে চাইলে আজ মঙ্গলবার (৬ জুলাই) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক মো. মোস্তাফিজুর রহমান দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, এখনও পর্যন্ত শিডিউল অপরিবর্তিত আছে। আগামীকাল বা পরশু এ বিষয়ে আমরা ইনফর্মালি একটা মিটিং করবো। সেখানে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এটা দ্বিতীয় ধাপে চালু হবে কিনা বা অন্য কোনো ধরনের পরিকল্পনা আমাদের আছে কিনা সেটি উপাচার্য স্যারকে অবহিত করা হবে। যদি সিদ্ধান্ত হয়, তাহলে যথাসময়ে আমি অনলাইনে প্রবেশপত্র দিয়ে দিবো৷

এখন পর্যন্ত আপনাদের প্রস্তুতি কতদূর, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা আসলে পলিসির ব্যাপার যেটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেবে। উনারা যদি কোনো ধরনের আশঙ্কা করেন অথবা কোনো ধরনের অসুবিধা থাকে, তাহলে উনারাও উপাচার্যের সাথে আলাপ করবেন, তারপরে হয়তো যা হবে সেটা আমাকে বলবেন। আপাতত আমাদের ১০ তারিখের প্রস্তুতি নিয়ে কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

জানা গেছে, আগামী ৩১ জুলাই থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ‘চ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩১ জুলাই, ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৬ আগস্ট, ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৭ আগস্ট, ১৩ আগস্ট ‘গ’ ইউনিট ও ১৪ আগস্ট ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

তবে মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ওপর নির্ভর করছে এই ভর্তি পরীক্ষা। আগামীতে এই ভাইরাসের অবস্থা অবনতি হলে পেছাতে পারে ভর্তি পরীক্ষার দিনক্ষণ। আর উন্নতি হলে যথাসময়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরিস্থিতি কোন দিকে যায় সেটি দেখেই চলতি মাসের মাঝামাঝিতে সিদ্ধান্ত নিতে পারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় বর্তমানে এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউন চলছে। কঠোর লকডাউনের ৫ম দিন গতকাল (সোমবার) একদিনে দেশে করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড গড়েছে। এ অবস্থায় এই বিধিনিষেধ আরও সাতদিন বাড়নো হয়েছে।

এই অবস্থা অব্যাহত থাকলে আগামী ৩১ জুলাই থেকে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু করা কঠিন হয়ে যাবে বলে মনে করছেন বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা। এ বিষয়ে সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপ-​উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, বর্তমানে করোনার কারণে সারাদেশের মানুষ আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে। এই মুহুর্তে ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কোন কারণ দেখছি না। তবে এ ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত হলে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জানিয়ে দেয়া হবে।

বিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. মো. আব্দুস ছামাদ বলেন, আমারা আশা করেছিলাম যে করোনা পরিস্থিতি উন্নতি হলে ভর্তি পরীক্ষা নেবো। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে নানান আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে কিন্তু পরীক্ষা হয়ে যাওয়াতে অনেক ভালো হয়েছে। আমরা যদি ভর্তি পরীক্ষাটা নিতে পারতাম শিক্ষার্থীরা অন্তত ভর্তি প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকতে পারতো। তাই একটু সুযোগ পেলেই ভর্তি পরীক্ষাটা নিয়ে নেওয়াটাই বেটার হবে বলে আমি মনে করি। 


মন্তব্য

x