ফরিদপুরে ১৩ শতাংশ বেড়েছে বাল্যবিবাহ

বাল্যবিবাহ
ফরিদপুর প্রেসক্লাবে শিশুদের সংগঠন ন্যাশনাল চিলড্রেন টাক্সফোর্সে  © সংগৃহীত

মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘ ১৮ মাস বন্ধ ছিল সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। যার ফলে ফরিদপুরে আগের চেয়ে ১৩ শতাংশ শিশু বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে। বিশেষ করে জেলার উত্তরাঞ্চলে এর পরিমাণ আরও বেড়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বেলা ১২টার দিকে ফরিদপুর প্রেসক্লাবে শিশুদের সংগঠন ন্যাশনাল চিলড্রেন টাক্সফোর্সে (এনসিটিএফ) এসব তথ্য জানায়।

এ সময় শিশু নির্যাতন ও বাল্যবিবাবহ রোধ করার দাবি জানিয়েছে এনসিটিএফ।

তথ্য থেকে জানা যায়, দেশে শিশু নির্যাতন ও বাল্যবিবাহের হার বেড়ে গেছে। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের জেন্ডার অ্যান্ড জাস্টিস বিভাগের প্রতিবেদন অনুযায়ী করোনার পর দেশে আগের চেয়ে ১৩ শতাংশ শিশু বেশি বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে, বিশেষত উত্তরাঞ্চলে এ সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে।

তথ্য থেকে আরও জানা যায়, আমরা শিশুরা বাল্যবিবাহ ও শিশু নির্যাতনের সঙ্গে জড়িত সব ব্যক্তিকে দ্রুত বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার জোর দাবি জানাচ্ছি, যাতে ভবিষ্যতে কেউ শিশুদের প্রতি নিষ্ঠুর আচরণ করতে সাহস না পায়।

এ সময় এনসিটিএফ ফরিদপুরের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন শিশু সংগঠক দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল নাসিম, শিশু গবেষক এসএসসি পরীক্ষার্থী মো. আব্দুল্লাহ, দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী মনিরা আক্তার, শিশু সাংবাদিক দশম শ্রেণির শাহারিণ ইসলাম, এসএসসি ঊর্মি আক্তার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক শামীম আহমেদ ও জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা।


মন্তব্য