জিন্স পরায় কিশোরীকে পিটিয়ে হত্যা স্বজনদের

মা শকুন্তলা দেবীর সঙ্গে নেহা
মা শকুন্তলা দেবীর সঙ্গে নেহা  © সংগৃহীত

ভারতের উত্তর প্রদেশে সতেরো বছর বয়সী নেহা পাসওয়ান নামে এক কিশোরীকে তার ঘনিষ্ঠ আত্মীয়স্বজনেরা পিটিয়ে মেরে ফেলেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নেহার জিন্স পরা তার ঘনিষ্ঠজেনেরা পছন্দ করতে না পেরে এমনটা ঘটিয়েছে বলে জানা গেছে। -খবর বিবিসি বাংলার

ঘটনাটি ঘটেছে ওই রাজ্যের সবচাইতে পিছিয়ে পড়া দেওরিয়া এলাকার একটি গ্রাম সাভরেজি খার্গে। গত সপ্তাহে এ ঘটনা ঘটে। নেহার বাবা অমরনাথ পাসওয়ান পাঞ্জাবের একটি শহর লুধিয়ানায় দিনমজুরের কাজ করেন।

নিহত নেহার মা শকুন্তলা দেবী পাসওয়ান বলেন, পোশাকআশাক নিয়ে তর্কের এক পর্যায়ে নেহার দাদা এবং চাচারা তাকে লাঠি দিয়ে প্রচণ্ড পেটায়। পরে সে অচেতন হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

শকুন্তলা দেবী বলেন, পরদিন সকালে তিনি শুনতে পান গন্ডক নদীর ওপরের একটি সেতু থেকে একটি মেয়ের মৃতদেহ ঝুলছে। সেখানে গিয়ে তারা জানাতে পারেন, লাশটি তার মেয়ে নেহার।

বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, এ ঘটনায় পুলিশ দশ জনের বিরুদ্ধে হত্যা ও প্রমাণ নষ্টের অভিযোগে মামলা করেছে। অভিযুক্তদের মধ্যে নেহার দাদা-দাদী, চাচা-চাচী, চাচাতো ভাইবোন ও অটোরিকশা চালক রয়েছে।

সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা স্রিয়াশ ত্রিপাঠি বলেন, নেহার দাদা-দাদী, একজন চাচা এবং অটো চালককে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেপ্তারের জন্য খোঁজা হচ্ছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ