ঘটনার আগে ফোন করেছিল মেয়ে, মিটিংয়ে থাকায় রিসিভ করেননি বাবা

অভিযুক্ত ফারদিন
অভিযুক্ত ফারদিন  © সংগৃহীত

ইফতেখার ফারদিন দিহান এবং তার বন্ধুরা যখন আমার মেয়েকে নির্যাতন করছিল, তখন মেয়েটা বাঁচার জন্য আমাকে ফোন করে। কিন্তু মিটিং থাকায় আমি কল রিসিভ করতে পারি নাই। এটাই ছিল ভুল। কল রিসিভ করতে পারলে পরিস্থিতি আজ ভিন্ন হতো।

রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় এভাবেই রোববার আকুতি করছিলেন তার বাবা। 

তার ভাষ্য, ঘটনার দিন দুপুর ১২ টা ১৯ মিনিটে তার কাছে ফোন করা হয়েছিল। কিন্তু রিসিভ করতে পারেননি। পুলিশ জানায়, সব তথ্য বিবেচনা করেই তদন্ত করা হচ্ছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা আছে, দিহান গত বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে ওই স্কুলছাত্রীকে প্রেমে প্রলুব্ধ করে মোবাইল ফোনে ডেকে বাসায় নিয়ে যায়। এরপর ফাঁকা বাসায় মেয়েটিকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণ রক্তক্ষরণের কারণে মেয়েটি অচেতন পড়ে।

তখন বিবাদী ধর্ষণের বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার জন্য মেয়েটিকে নিয়ে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যায়। সেখানে ভিকটিমের মৃত্যু হয়। সংবাদ পেয়ে কলাবাগান থানা পুলিশের একটি দল দ্রুত হাসপাতালে যায়।


মন্তব্য