কলেজছাত্রকে বিবস্ত্র করে মারধর-ভিডিও ধারণের অভিযোগ

ঘফ
ভুক্তভোগী কলেজছাত্র   © সংগৃহীত

সাতক্ষীরার তালায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মুক্তিপণের দাবিতে এক কলেজছাত্রকে মারপিট ও বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে সেই অভিযোগ এখনো মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়নি। পুলিশ বলছেন, ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে স্থানীয় জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা ওই ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করার পাশাপাশি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

ভুক্তভোগী কলেজছাত্র শোয়েব আজিজ তন্ময় তালা সদরের জাতপুর গ্রামের শেখ আজিজুর রহমানের ছেলে। শোয়েব জাতপুর টেকনিক্যাল কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসিতে পাস করেছেন।

অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হলেন- উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও তালার মাঝিয়াড়া গ্রামের সৈয়দ আকিব, উপজেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও হরিশচন্দ্রকাটি গ্রামের সৌমিত্র চক্রবর্তী, তালা গার্লস স্কুল এলাকার বাসিন্দা ছাত্রলীগ কর্মী জে. আর সুমন, তালার মহান্দি গ্রামের ছাত্রলীগ কর্মী মো. জয় ও তালা সদরের ছাত্রলীগ কর্মী নাহিদ হাসান উৎস।

শোয়েব আজিজ জানান, ছাত্রলীগের কর্মী নাহিদ হাসান আমার পূর্ব পরিচিত। বাজারে যাতায়াত সুবাদে তার সাথে পরিচয়। দুপুরে সে আমাকে ফোন করে তালা কলেজ এলাকায় ডেকে নেয়। এরপর কলেজের একটি কক্ষে নিয়ে যায়।পরে আমাকে টানা ৫ ঘণ্টা আটকে রেখে আকিব, সৌমিত্র, সুমনসহ অন্যরা নির্যাতন চালায়। নির্মমভাবে মারপিটের পর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয়। এরপর বিবস্ত্র করে তারা ভিডিও ধারণ করে। আমার বাসায় ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে তারা।

আরও পড়ুন : কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়: ভুল লোগোর ছড়াছড়ি

তিনি আরও জানান, যে রুমে আমাকে আটকে রেখেছিল, সেটি সম্ভবত কলেজের ছাত্রবাসের একটি কক্ষ। যা কলেজের মধ্যেই। ওই রুমে মারপিট করার জন্য বেল্ট, লাঠিসোঁটাও রয়েছে। ওইখানে নিয়ে তারা টর্চার করে বলে মনে হয়েছে।

তন্ময়ের বাবা আজিজুর রহমান জানান, ছেলের জীবনটা নষ্ট করে দিল। তন্ময়ের সঙ্গে ওরা পড়েও না। হঠাৎ ডেকে নির্যাতন করা হয়েছে। রোববার বিকালে ফোন করে দুই লাখ টাকা নিয়ে কলেজের সামনে যাওয়ার কথা বলে তারা।
ছেলে কৌশলে নিজের ফোন থেকে তার চাচাতো ভাই জুবায়ের আহমেদকে বার্তা পাঠায়। পরে অবস্থান নিশ্চিত হয়ে জুবায়েরসহ অন্যরা ছুটে যায়। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।


x