জনশুমারিতে জানা যাবে সঠিক শিক্ষার হার: শিক্ষামন্ত্রী

জনশুমারি
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি  © সংগৃহীত

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, জনশুমারির মাধ্যমে শিক্ষার হারের সঠিক পরিসংখ্যান পাওয়া যাবে এবং সারাদেশের একটি সঠিক চিত্র আমাদের হাতে আসবে। কতজন মানুষ নিরক্ষর রয়েছে, কতজন শিক্ষিত হয়েছেন এবং তাদের আর্থসামাজিক যে অবস্থান আমরা পাব সেটি দিয়ে নানান কর্মপরিকল্পনা গ্রহণে সহায়ক হবে।

সারাদেশের মতো চাঁদপুরেও ষষ্ঠ ডিজিটাল জনশুমারি ও গৃহগণনা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বুধবার (১৫ জুন) সকালে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি তার নিজস্ব বাস ভবনের হলরুমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উদ্বোধন করে প্রধান অতিথি বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রথমবার দেশে ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনশুমারি হচ্ছে। ডিজিটাল পদ্ধতিতে হওয়ার কারণে এর যত তথ্য সংগৃহীত হবে তার ব্যবহার তত সহজ হয়ে যাবে। জনশুমারির মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বের করে নেয়া এবং গবেষণা করা অনেক বেশি সহজ হবে।

দীপু মনি বলেন, মূলত জনশুমারি দেশে কত মানুষ আছেন বা তারা কি করেন এটি শুধু একটি সংখ্যা জানা নয়। জনশুমারি দেশের উন্নয়ন পরিকল্পনার অন্যতম হাতিয়ার। এই সংখ্যা বা পরিসংখ্যান না থাকলে যথাযথ পরিকল্পনা করা সম্ভব হয় না এবং সে কারণেই জনশুমারি করা হয়।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যেভাবে অপ্রতিরোধ্যভাবে এগিয়ে চলছে সেই অগ্রযাত্রাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য এবং তা আরও বেগবান করার জন্য এই জনশুমারিতে প্রাপ্ত তথ্য কাজে লাগবে। তাই আমি আশা করি চাঁদপুরসহ দেশের সবাই সঠিক তথ্য দিয়ে এই জনশুমারিতে যে সকল স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন তাদেরকে সহযোগিতা করবেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ, জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয়ের উপপরিচালক নাঈমা রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দীন, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মো. আব্দুর রশিদ, পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদারসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, চাঁদপুরে ৫২ জন জোনাল ও ৫২ জন আইটি অফিসার এবং ৭ হাজার সুপারভাইজার ও গণনাকারী জনশুমারিতে কাজ করছেন।


x