শেষ মুহূর্তে এসএসসির প্রস্তুতি

শেষ মুহূর্তে এসএসসির প্রস্তুতি
এসএসসি পরীক্ষার্থী  © সংগৃহীত

আমরা সবসময় শুনে এসেছি ‘স্টাডি হার্ড’। যেন বেশি বেশি পড়াশোনা করলেই ভাল রেজাল্ট হবে। আসলে বলা  উচিত ‘স্টাডি স্মার্ট’। কারণ সঠিক নিয়মে পড়াশোনা  করলে এরচেয়ে অনেক বেশি ফলপ্রসূ হয়। আর কদিন পরেই শুরু হবে এসএসসি পরীক্ষা। শেষ সময়ে সঠিক নিয়মে কিভাবে প্রস্তুতি নিবে সেই বিষেয়ে এখন আলোকপাত করবো। 

১। নতুন কোন টপিক এখন পড়া যাবে না। পরীক্ষার আগে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন কোন অধ্যায় দেখলে তারা ভালোভাবে পড়া শুরু করে দেয়। এটা মোটেও ভাল অভ্যাস নয়। একদম শেষ মুহূর্তে নতুন করে কোন কিছু বুঝে ফেলা প্রায় অসম্ভব। তাই তোমাদের উচিত এতদিনে যে অধ্যায়গুলো পড়েছ সেগুলোই ভালোভাবে বারবার পড়ে আয়ত্ত করে নেওয়া। কারণ, এই মুহূর্তে তুমি যদি নতুন কোন অধ্যায়ে পড়ো তাহলে পরীক্ষায় গিয়ে মনে থাকবে না সেই সাথে আগের পড়াগুলো ভুলে যাবে।

২।  এই সময়ে খুব বেশি চাপ নেয়া উচিত না বরং মাথা ঠান্ডা রাখাই শ্রেয়। কিন্তু, এটা একদমই ভুল ধারণা যে মাথা ঠান্ডা রাখতে পড়াশোনার অব্যাহতি দিতে হবে। বরং, এই সময় মাথা ঠান্ডা রেখে প্রশ্নের প্যাটার্ন বুঝে পড়াশোনা করলে অল্প সময়ে বইয়ের বেশিরভাগ অংশ কাভার করা সম্ভব।

৩। সব বিষয়কে গুরুত্ব দেয়া। এসএসসি পরীক্ষার দ্বারপ্রান্তে এসে অনেক শিক্ষার্থীদের মনে হতে পারে যে, শুধু কঠিন বিষয় গুলি পড়তে হবে। কিন্তু এ ধরনের মানসিকতা ঠিক নয়। কারণ, পরীক্ষার রেজাল্ট বিশ্লেষন করলে দেখা যায় যে সহজ বিষয় গুলোর জন্যই শিক্ষার্থীদের কাঙ্খিত ফলাফল অর্জন সম্ভব হয় না।

আরও পড়ুন: এবারও বিশ্বসেরা ৮০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় নেই ঢাবি-বুয়েট

৪। যারা বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী তারা মনে করে পদার্থ, রসায়ন, অথবা উচ্চতর গণিত নিয়ে ব্যস্ত থাকি অন্য বিষয় যেমন বাংলা, সমাজ,  আইসিটি এসব বিষয়ে গুরুত্ব কম দিয়ে থাকে। কিন্তু,  এটি একদমই ঠিক নয় সব বিষয়কে সমান ভাবে গুরুত্ব দেয়া উচিত । কারণ, আমাদের পরীক্ষার রেজাল্টে কিন্তু সব বিষয়ে আমরা কি রকম পরীক্ষা দিয়েছি তার উপর  ভিত্তি করেই রেজাল্ট আসবে।

৫। নিজেই নিজের সাজেশন বানাও। অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে , বইয়ের বিষয়গুলো তারা খুব ভালো করছে কিন্তু যখনই তাদেরকে প্রশ্ন করা হয় তারা আর উত্তর করতে পারে না। এর কারণ হচ্ছে, কোন একটি গল্প বা কোন একটি থিওরি তুমি খুব ভালো করে পড়েছ কিন্তু এর উপর সৃজনশীল প্রশ্ন কেমন আসতে পারে সেটা নিয়ে তুমি অনুশীলন করনি। এর জন্য বিগত সালের প্রশ্নের প্যাটার্ন গুলো দেখে তুমি বুঝে নিতে পারো। কোন অধ্যায় থেকে কি রকম প্রশ্ন অধিক গুরুত্বপূর্ণ, বা কি ধরণের প্রশ্ন বেশি আসে তা দেখে কিন্তু তুমি নিজেই একটি সাজেশন তৈরি করতে পারো।

৬।পরীক্ষার প্রস্তুতির সাথে শারীরিক প্রস্তুতি অত্যন্ত জরুরী। এসময় শারীরিকভাবে সুস্থ থাকাটা অত্যন্ত জরুরী। পড়াশোনার পাশাপাশি খাওয়া-ঘুম, বিশ্রাম এগুলো সময়মতো করতে হবে। বেশি রাত জাগা যাবে না । অতিরিক্ত পরিশ্রম করলে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি থাকে। শরীর সুস্থ না থাকলে ভালো প্রস্তুতি নিয়েও এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে সমস্যা হতে পারে। পড়াশোনা অনেক সময় বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায় তাই কিছু সময় বিনোদনের জন্য রাখতে হবে।

সবশেষে সকল এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য রইল শুভেচ্ছা এবং শুভকামনা।


x