সবচেয়ে বেশি গালি খাওয়ার রেকর্ড রোনালদোর

খেলাধুলা
ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো  © সংগৃহীত

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেওয়ার পর থেকেই সমালোচনার মুখে পর্তুগিজ তারকা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ক্লাব বদল নিয়ে নানা বিতর্কের কারণে সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। সম্প্রতি ব্রিটিশ সংস্থা অফকমের এক গবেষণায় এসেছে, এসব ঘটনায় টুইটারে সবচেয়ে বেশি গালিগালাজ করা হয়েছে রোনালদোকে। তার সঙ্গে আছেন ইউনাইটেড অধিনায়ক হ্যারি ম্যাগুইয়ারও।

গবেষণায় আনা হয়েছিল মৌসুমের প্রথম ভাগে ২৩ লাখ টুইট হয়েছিল। যার মধ্যে প্রায় ৬০ হাজার টুইটই বিদ্বেষমূলক। সেই সব গালিগালাজের অর্ধেকেরও বেশি করা হয়েছে ১২ জন খেলোয়াড়কে, তার আটজনই ইউনাইটেডের ফুটবলার। রোনালদোকে উদ্দেশ্য করে ঘৃণামূলক টুইট হয়েছে ১২ হাজার ৫২০টি। তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের অধিনায়ক হ্যারি ম্যাগুইয়ার। তাঁকে উদ্দেশ্য করে টুইটারে ৮ হাজার ৯৫৪ বার গালি দেওয়া হয়েছে।

রোনালদো আর ম্যাগুইয়ার ছাড়াও যে তালিকায় আছেন মার্কাস রাশফোর্ড, ব্রুনো ফার্নান্দেস, ফ্রেদ, জেসি লিনগার্ড, পল পগবা ও দাভিদ দা হেয়া। শীর্ষ দশে থাকা বাকি দুই খেলোয়াড় হলেন টটেনহাম হটস্পারের স্ট্রাইকার হ্যারি কেইন ও ম্যানচেস্টার সিটির মিডফিল্ডার জ্যাক গ্রিলিশ। কেইনের অবস্থান পঞ্চম, তাঁকে নিয়ে টুইটারে ২ হাজার ১২৭ বার বিদ্বেষপূর্ণ টুইট করা হয়েছে, ১ হাজার ৫৩৮টি ঘৃণার টুইট করা হয়েছে গ্রিলিশকে।

গবেষণার জন্য টুইটারকে বেছে নেওয়া হয়েছিল, খেলোয়াড়দের মধ্যে এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমই বেশি জনপ্রিয়। টুইটারের তথ্যই সবচেয়ে বেশি সহজলভ্য। অনলাইনে বাজে ব্যবহারের কোনো জায়গা খেলাধুলায় নেই, এমনকি বৃহত্তর সমাজেও নেই। একে দমন করতে দলীয় চেষ্টা প্রয়োজন।

আরও পড়ুন: চলতি মাসে মুখোমুখি হচ্ছে ভারত-পাকিস্তান

টুইটার জানিয়েছে, ৩৮০০০টি গালমন্দ করা পোস্ট সরিয়ে নেওয়া হয়েছে তাদের পক্ষ থেকে। তা নাহলে গবেষণাটিতে রোনালদো-ম্যাগুয়েরের প্রতি গালিগালাজ করা পোস্টের সংখ্যা আরও বাড়ত। ব্যক্তিগতভাবে ভালো পারফর্ম করলেও দলের পারফরম্যান্সের জন্য সমালোচিত হন পর্তুগালের এই সুপারস্টার।


x