হল খোলার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহবান ইবি শিক্ষার্থীদের

হল খোলার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহবান ইবি শিক্ষার্থীদের
  © টিডিসি ফটো

আগামী ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ক্লাস ও ১৭ মে থেকে হল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সরকার। তবে সরকারের এ সিদ্ধান্তকে পুনর্বিবেচনার আহবান জানিয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। সেই সঙ্গে অবিলম্বে ক্যাম্পাস খোলার দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন সংসদ। হল খোলার দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মত অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

সোমবার ( ২২ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়না চত্বর এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে তারা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সামনে এসে অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা।

আজ দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে আগামী ১৭ মে হল ও ২৪ মে থেকে সশরীরে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম চালু হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এসময়ে কোন ধরনের একাডেমিক পরীক্ষাও নেওয়া যাবে না বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। একইসাথে আগামীকাল সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলন করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবে বলে জানান তারা।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘সরকারের সিদ্ধান্ত ‘বিচার মানেই তালগাছ আমার’ এই ধরনের। সরকারের সিদ্ধান্তের সাথে আমরা কোনভাবেই একমত না। এ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানাচ্ছি। অবিলম্বে হল খোলা না হলে আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে।’

এদিকে সংবাদ বিবৃতিতে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সংসদ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি নূরুন্নবী সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক জি. কে. সাদিক বলেন, ‘সারাদেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্রুত হল ও ক্যাম্পাস খুলে দেয়ার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে শিক্ষামন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন সেটা শিক্ষার্থীদের হতাশ করেছে। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত ১১ মাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার ফলে শিক্ষাব্যস্থা ধ্বসে গেছে। সেই প্রেক্ষিতে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য অনভিপ্রেত। আমরা এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাখান করছি। এবং অনতিবিলম্বে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হল ও ক্যাম্পস খুলে দেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, আগামীকার ডিনদের নিয়ে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে পরীক্ষার বিষয়ে পরবর্তী সিন্ধান্ত নেওয়া হবে। হল খোলার ব্যপারে সরকারের সিন্ধান্তই চূড়ান্ত।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ