অষ্টম বছরে নোবিপ্রবিসাস

অষ্টম বছরে নোবিপ্রবিসাস
২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় নোবিপ্রবিসাস  © সংগৃহীত

সাত বছর পেরিয়ে অষ্টম বর্ষে পদার্পণ করেছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (নোবিপ্রবিসাস)। ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে সংগঠনটি সাফল্যের সাথে তার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক ওয়েবিনারে সাফল্যের সেই যাত্রাকে স্মরণ করেছে নোবিপ্রবিসাসের সদস্যরা।

সোমবার (১১ অক্টোবর) রাতে অনলাইন মিটিং প্লাটফর্ম ‘জুম’ এ আয়োজিত ওই ওয়েবিনারটি নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির ফেসবুক পেজ থেকেও লাইভ দেখানো হয়।

নোবিপ্রবিসাসের সভাপতি আব্দুর রহিমের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দীন।

আর প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেশ বরেণ্য সাংবাদিক এএফপি বার্তা সংস্থার ব্যুরো প্রধান মো. শফিকুল ইসলাম। প্রধান বক্তা তার বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের সাংবাদিকতা বিষয়ক বিভিন্ন বেসিক বই পড়ে কাজে আরো গতিশীলতা ও সুনিপুণতা বৃদ্ধির উপদেশ দেন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে ও আশেপাশে অনুসন্ধানীমূলক সাংবাদিকতার প্রতি জোর দেয়ার আহ্বান জানান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম নোবিপ্রবিসাসকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রায় সাংবাদিক সমিতির সহায়তা কামনা করেন। এসময় তিনি বলেন, সাংবাদিকতা একটি শিল্প। পড়াশোনার পাশাপাশি ক্যাম্পাস সাংবাদিকতা অত্যন্ত কঠিন কাজ। সাংবাদিকতায় জোর দিতে গিয়ে যেনো কারো একাডেমিক পড়াশোনায় কোন ক্ষতি না হয় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দীন বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার কর্মজীবনের শুরু থেকেই দেখেছি, নোবিপ্রবিসাস বিশ্ববিদ্যালয়কে সারাবিশ্বে তুলে ধরতে কাজ করে যাচ্ছে। আশা রাখছি তাদের এই কাজ ভবিষ্যতেও বজায় রাখবে।

এসময় তিনি আসন্ন গুচ্ছ পদ্ধতিতে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের জন্য নোবিপ্রবিসাসের সহায়তা কামনা করেন।

নোবিপ্রবিসাসের কার্যনির্বাহী সদস্য সাবিহা তাসমিমের সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- নোবিপ্রবিসাসের প্রাক্তন উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং নোবিপ্রবিসাসের বর্তমান ও প্রাক্তন সদস্যরা।

ওয়েবিনারে নোবিপ্রবিসাসের সাত বছরের পথচলা নিয়ে একটি বিশেষ ডকুমেন্টারিও প্রদর্শন করা হয়।

২০১৪ সালের ১১ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় পার্কে আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার মাধ্যমে নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতি তার পথচলা শুরু করে।


মন্তব্য