মোবাইল চুরির অপবাদে স্কুলছাত্রকে অমানবিক নির্যাতন, মা-ছেলে আটক

মোবাইল চুরির অপবাদে স্কুলছাত্রকে অমানবিক নির্যাতন, মা-ছেলে আটক
শিশু স্কুলছাত্রকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করছে ফাতেমা ও ছেলে হিমেল

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে রিফাত (৯) নামের এক শিশু স্কুলছাত্রকে মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে অমানবিকভাবে গামছা ও রশি দিয়ে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মা-ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওই নির্যাতনের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে ঘটনাটি জানাজানি হয়। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় অভিযুক্ত গৌরীপুর উপজেলার ডৌহাখলা ইউনিয়নের মৃত বারেক ডাকাতের স্ত্রী ফাতেমা বেগম ও তার ছেলে হিমেলকে আটক করে।

তার আগে গত শুক্রবার (০৪ জুন) দুপুরে গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের মধুবন আদর্শ গ্রামে (গুচ্ছগ্রাম) এমন অমানবিকভাবে শিশু নির্যাতনের এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি প্রথমে স্থানীয়দের মাঝে গোপন থাকলেও গতকাল বৃহস্পতিবার (১০ জুন) ফেসবুকের মাধ্যমে এ ঘটনাটি জানাজানি হয়।

নির্যাতনের শিকার রিফাত গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র এবং রামগোপালপুর ইউনিয়নের মধুবন আদর্শ গ্রামের সুরুজ মিয়ার ছেলে।

শিশু রিফাতের বাবা সুরুজ মিয়ার অভিযোগ করে বলেন, ‘শুক্রবার (০৪ জুন) দুপুরে বাড়ি থেকে রিফাতকে ডেকে নিয়ে যায় নির্যাতনকারী ফাতেমা ও ছেলে হিমেল। তাদের বাড়িতে নিয়ে মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে গাছের সঙ্গে রশি ও গামছা দিয়ে বেঁধে রিফাতকে অমানবিকভাবে মারধর করে। তাৎক্ষণিক আমি খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় আহত ছেলেকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসি। পরে স্থানীয়ভাবে বিচারের আশ্বাসে আমার ছেলেকে নির্যাতনের ঘটনাটি গোপন রেখেছিলাম।’

গৌরীপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাটি জানার পর তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত মা ও ছেলেকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।’

গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) হাসান মারুফ এ ব্যাপারে বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ও স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার এ ঘটনার বিষয়ে অবগত হয়ে গৌরীপুর থানার পুলিশকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জানানো হয়েছে।’

রিলেটেড সংবাদ: স্কুলছাত্রী অপহরণের অভিযোগ, তরুণ গ্রেপ্তার


মন্তব্য