বিনা বেতনে কাজ করছেন ৮৪ কর্মচারী!

শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল  © ফাইল ফটো

চাকরি পাওয়ার আশায় বিনা বেতনে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কাজ করছেন ৮৪ জন আউটসাের্সিং কর্মচারী। তবে এই হাসপাতালে ৯ মাস কাজ করার সময় ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ওই ৮৪ জন আউটসাের্সিং কর্মচারীকে বেতন কম দেওয়ার অভিযােগ উঠেছে।

এদিকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমতি না থাকায় হাসপাতালে ৯ মাস কাজ করার পর ওই ৮৪ জন আউটসাের্সিং কর্মচারীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয় কর্তৃপক্ষ।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, সাবেক পরিচালক ২০১৯ সালে দুই দফায় ১৭৪ জনকে আউটসাের্সিংয়ে চাকরির জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চাহিদাপত্র পাঠান। পরে মন্ত্রণালয় তাঁদের ওই তালিকা অনুমােদনের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানাে ওই তালিকার এক কপি হাসপাতালে পাঠায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। কিন্তু অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমােদন দেওয়ার আগেই তৎকালীন পরিচালক ঠিকাদারের মাধ্যমে আউটসাের্সিংয়ে ১৭৪ জনকে নিয়োগ দেন। পরে অর্থ মন্ত্রণালয় তাঁদের মধ্যে ৯০ জনকে আউটসাের্সিংয়ে চাকরির জন্য অনুমােদন দেয়। ফলে বাকি ৮৪ জন অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমােদনহীন রয়ে যায়। ওই নিয়ােগের ৯ মাস পর ঘটনাটি জানার পর ৮৪ জনকে চাকরি হতে অব্যাহতি দেন ওই কর্মকর্তা।

গত বছরের ১ অক্টোবর থেকে এ বছরের ৩১ জুলাই পর্যন্ত তাদের বেতন দেওয়া হয়। করােনাকালে বিশেষ বিবেচনায় তাঁদের ওই কর্মকালের বেতন ছাড় করা গেলেও তাঁদের চাকরি অনুমােদন করা সম্ভব হয়নি। তাই তাঁদের (৮৪ জন) চাকরি থেকে অব্যাহতি দিতে হয়েছে।

পরে ওই ৮8 জনসহ ১০২ জনকে আউটসাের্সিংয়ে নিয়ােগের জন্য আবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চাহিদা দেওয়া হয়, যা অর্থ মন্ত্রণালয়ে অনুমােদনের জন্য যাবে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমােদন পাওয়ার পরই ঠিকাদারের মাধ্যমে আউটসোর্সিংয়ে লােক নিয়ােগ দেওয়া হবে।

এ ছাড়া অর্থ মন্ত্রণালয় আউটসাের্সিংয়ের ১২ জনকে রাজস্ব খাতে নিয়ােগের জন্য পদ অনুমােদন দিলেও নির্ধারিত পরীক্ষা ও বাছাইপ্রক্রিয়া ছাড়া তাঁদেরও নিয়ােগ দেওয়া যায়নি। ফলে ওই ৮৪ জনই অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমােদনহীন রয়ে গেছেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ