জাবির ছাত্রী হলে চুরির ঘটনায় হল প্রভোস্টের পদত্যাগ

জাবির ছাত্রী হলে চুরির ঘটনায় হল প্রভোস্টের পদত্যাগ
  © ফাইল ছবি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) সম্প্রতি নারী শিক্ষার্থীদের তিনটি হলে চুরিসহ কিছু অনাকাঙ্খিত ঘটনার প্রেক্ষিতে বেগম সুফিয়া কামাল হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক মো. মোতাহার হোসেন পদত্যাগ করেছেন। তার পরিবর্তে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আইআইটি এর অধ্যাপক কে এম আককাছ আলীকে ওই হলের সাময়িক প্রভোস্ট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। 

আজ সোমবার (১৩ মার্চ) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের চুক্তিভিত্তিক রেজিস্টার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বেগম সুফিয়া কামাল হলের প্রভোস্ট ও আইবিএ-জেইউ’র অধ্যাপক ড. মো. মোতাহার হোসেনের প্রভোস্টের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগপত্র গ্রহণপূর্বক ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি'র অধ্যাপক কে এম আককাছ আলীকে যোগদানের তারিখ হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ওই হলের প্রভোস্ট নিয়োগ করা হলো। তিনি প্রচলিত নিয়মে সুবিধাদি ভোগ করবেন।

পদত্যাগের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক মো. মোতাহার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি। 

তবে রেজিস্ট্রার অফিস সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি নারী শিক্ষার্থীদের তিনটি হলে চুরি সহ কিছু অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে। যার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট তিনটি হলের প্রাচীর দেওয়াল উচু করার নির্দেশ দেওয়া হয় হল কর্তৃপক্ষকে। নিজস্ব ফান্ড থেকে হল নির্মাণ করার কথা বলা হলেও বেগম সুফিয়া কামাল হলের ফান্ডে পর্যাপ্ত টাকা নাই বলে জানান প্রভোস্ট মোতাহার হোসেন। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে তিনি পদত্যাগ করেছেন বলে জানা যায়।

এদিকে নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রভোস্ট বলেন, ২০০৯ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি হলের ওয়ার্ডেন হিসেবে আমি দায়িত্ব পালন করে এসেছি। তবে প্রভোস্ট হিসেবে এটা আমার নতুন দায়িত্ব। যদিও এরকম ঘোলাটে একটা সময়ে দায়িত্বটা পেয়েছি। চেষ্টা করবো খুব দ্রুতই হলের চলমান সমস্যাগুলোর সমাধান করে সুষ্ঠু আবাসিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে। 

উল্লেখ্য, গতকাল রবিবার (১২ মার্চ) ও গত সপ্তাহের মধ্যে দুইবার জাবির ছাত্রী হলগুলোতে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং চুরির চেষ্টা করে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি। এই ব্যাপারে হল প্রশাসন থেকে সঠিক কোন পদক্ষেপ পাওয়া না নেয়ায় ১২ মার্চ বিক্ষোভ মিছিল করেন আবাসিক ছাত্রীরা। 


সর্বশেষ সংবাদ