ঝুঁকি নিয়ে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা না নেয়ার পরামর্শ

পরীক্ষা
অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক ও ঢাবি লোগো  © ফাইল ফটো

দেশে প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই অবস্থায় ঝুঁকি নিয়ে মেডিকেল ভর্তি আয়োজন করা উচিত নয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নিলেও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় শিক্ষার্থীদের জড়ো করে পরীক্ষা নিচ্ছে। সরকারে দুই প্রতিষ্ঠানের এমন দ্বিমুখিতা কাম্য নয়।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) রাতে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসের সাথে আলাপকালে এসব কথা জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে স্কুল-কলেজ খুলছে না। তাহলে এই অবস্থায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কেন এত বড় একটি পাবলিক পরীক্ষা আয়োজন করতে চাচ্ছে সেটি তাদের পরিস্কার করা উচিত। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা রয়েছেন। জাতির সামনে তাদের পরীক্ষা নেয়ার কারণ বলা উচিত।

গণামধ্যম এক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করবে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে জমায়েত না করতে বলা হচ্ছে। বলা হচ্ছে ১০০ জনের বেশি একসাথে একত্রিত হওয়া যাবে না। তাহলে ১ লাখ ২২ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থীদের কেন একসঙ্গে সমবেত করা হচ্ছে? আমি আশা করছি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা এই বিষয়ে পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের স্পষ্ট ব্যাখ্যা দেবেন।

প্রসঙ্গত, গত ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী আগামী ২ এপ্রিল এমবিবিএস ও ৩০ এপ্রিল বিডিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার কথা রয়েছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ