‘শিক্ষকের বেত্রাঘাতে’ ছাত্রের মৃত্যু

মৃত্যু
‘শিক্ষকের বেত্রাঘাতে’ ছাত্রের মৃত্যু  © সংগৃহীত

কুমিল্লায় শিক্ষকের বেত্রাঘাতে গুরুতর আহত হয়ে মো. সিহাব উদ্দিন (১৪) নামের একজন মাদ্রাসা ছাত্র চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। 

শুক্রবার (৫ আগস্ট) দুপুরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (কুমেক) ওই ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সে জেলার বরুড়া উপজেলার ঝলম ইউনিয়নের শশইয়া গ্রামের শুক্কুর আলীর ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত মাওলানা আবদুর রব একই ইউনিয়নের মেড্ডা আল মতিনিয়া নূরানী মাদ্রাসার শিক্ষক। এ ঘটনায় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ওই মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। রাত পৌনে ৮টায় থানার ওসি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

শিহাবের ভাবি সাবিকুন নাহার ঝুমুর বলেন, ‘আমার দেবরকে কয়েক দিন আগে শিক্ষক আব্দুর রব বেত দিয়ে মারেন। এ সময় সিহাব অসুস্থ হয়ে পড়লে শিক্ষকরা তাকে ওষুধ এনে খাওয়ান। তাতেও সে সুস্থ না হওয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার মাদ্রাসা থেকে ফোন করে শিহাবের অসুস্থতার খবর জানানো হয়।

আরও পড়ুন: এইচএসসি’র শুরু থেকেই নিজেকে প্রস্তুত করেছি

‘আমার শ্বশুর গিয়ে তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। তার অবস্থা খারাপ হওয়ায় শুক্রবার সকালে উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে ডাক্তার তাকে কুমিল্লা মেডিক্যালে পাঠায়। ওইখানে নিলে দুপুরে সে মারা যায়।’

শিহাবের মা খালেদা বেগম বলেন, “আমার ছেলেকে যখন বাসায় আনা হয় তখন তার অনেক জ্বর। অনেক রাতে সে আমাদের বলে, ‘আমার কেন জ্বর তোমরা কেউ জানতে চাইলে না? আমার হাত থেকে ভাত পড়ে গেছে দেখে হুজুর আমাকে জোড়া বেত দিয়ে অনেক পিটিয়েছে।’

“আমার ছেলের ছোট থেকে হাত ভাঙা। আমগাছ থেকে পড়ে গিয়ে হাত ভাঙে। তাই হয়তো হাত থেকে ভাত পড়ে গেছে। এ জন্য তাকে মারল আব্দুর রব হুজুর। আমার ছেলে জ্বরে সকালে বমি করে দেয়। এরপর আমরা হাসপাতাল নিই।”

ওই মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আহমেদ শফি বলেন, আমি সিহাবের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। ঘটনাটি দুঃখজনক হলেও সিহাবকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে তো এ বেত্রাঘাত করা হয়নি। এখন আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাত পৌনে ৮টায় বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, প্রথমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই ব্যাপারে জানতে পারি। পরে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে বিষয়টি জেনে ঘটনাস্থলসহ ওই মাদ্রাসা ছাত্রের বাড়িতে পুলিশ পাঠানো হয়। বাড়ি থেকে ওই ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার কুমেক হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করা হবে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাদ্রাসার শিক্ষক আবদুর রবকে আটক করা হয়েছে।


x

সর্বশেষ সংবাদ