২০৩২ অলিম্পিক অস্ট্রেলিয়ার ব্রিজবেনে

খেলাধুলা
৩২ বছর পর অস্ট্রেলিয়াতে ফিরছে অলিম্পিক  © সংগৃহীত

২০৩২ অলিম্পিকের আসর বসবে অস্ট্রেলিয়ার ব্রিজবেনে। ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি (আইওসি) এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছে।

আইওসির এই সিদ্ধান্তে ৩২ বছর পর অস্ট্রেলিয়াতে ফিরছে অলিম্পিক। সবশেষ ২০০০ সালে সিডনিতে বসেছিল বৈশ্বিক ক্রীড়াঙ্গনের এই সর্ববৃহৎ আসর। এর আগে মেলবোর্নে ১৯৫৬ সালে বসেছিল অলিম্পিক আসর।

আগামী শুক্রবার জাপানের টোকিওতে বসবে ২০২০ অলিম্পিক। গত বছরই এই আসর মাঠে গড়ানোর কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের থাবায় এক বছর পিছিয়ে শুরু হচ্ছে তা।

টোকিওর পর ২০২৪ অলিম্পিক হবে ফ্রান্সের প্যারিসে। ২০২৮ অলিম্পিকের আয়োজক শহর যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস। সব মিলিয়ে অলিম্পিকের প্রস্তুতির জন্য ১১ বছর সময় পাচ্ছে ব্রিজবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর দ্বিতীয় দেশ হিসেবে তিনটি ভিন্ন শহরে গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক আয়োজন করতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।

ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটির ভোটারদের সঙ্গে ভিডিও লিংকে ১১ মিনিট ধরে কথা বলেছেন অস্ট্রেলিয়ান প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। তৃতীয়বারের মতো অস্ট্রেলিয়া আয়োজক হওয়ায় উচ্ছ্বসিত তিনি।

“অস্ট্রেলিয়াতে একটা সফল গেমস আয়োজন করতে কি লাগে সেটা আমরা জানি। কেবল ব্রিজবেন ও কুইন্সল্যান্ড নয়, পুরো দেশের জন্যই এটি ঐতিহাসিক একটা দিন।”

কুইন্সল্যান্ড রাজ্যের রাজধানী শহরটি আগে থেকেই ছিল স্বাগতিক হিসেবে পছন্দের তালিকায়। গত মাসে এটি নির্বাহী বোর্ডের সম্মতি অর্জন করেছিল।

২০৩২ সালের বৈশ্বির ক্রীড়া আসরটি আয়োজনে আগ্রহী ছিল ইন্দোনেশিয়া, জার্মনি, চীন, হাঙ্গেরির রাজধানী শহর বুদাপেস্ট, কাতারের দোহা।

আইওসির নতুন নিয়মে প্রর্থীদের প্রকাশ্যে  উন্মুক্ত লড়াইয়ে  একে অন্যের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর সুযোগ নেই। পছন্দের আয়োজক শহর হিসেবে গত ফ্রেব্রুয়ারিতেই এগিয়ে গিয়েছিল ব্রিজবেন।


মন্তব্য