উপজেলার একমাত্র বিদ্যালয়, ৮০০ শিক্ষার্থীর জন্য শিক্ষক ৩ জন

করোনা
তাহিরপুর উপজেলার একমাত্র সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট  © ফাইল ছবি

হাওর বেষ্টিত তাহিরপুর উপজেলার একমাত্র সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটের কারণে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যালয়ে শিক্ষকের পদ আছে ১১ জনের। কিন্তু বর্তমানে তাহিরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫ জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন। এর মধ্যে একজন ডেপুটেশনে থাকায় ও অন্য একজন প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করায় এখন তিনজন শিক্ষক দিয়ে পাঠদান চলছে। 

এলাকার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দেড় বছর করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে বিদ্যালয় বন্ধ ছিল। গত মাস থেকে স্কুলের ক্লাস শুরু হলে শিক্ষক সংকটের কারণে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। হাওরাঞ্চলের গ্রামগুলো থেকে কষ্ট করে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে আসলেও পাঠদান না হওয়ায় হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে। 

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে তাহিরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৪৩ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। শিক্ষকের পদ আছে ১১ জনের। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকসহ এই বিদ্যালয়ে শিক্ষক আছেন পাঁচজন। এর মধ্যে শিক্ষক মো. নুরুল ইসলাম ডেপুটেশনে আছেন সিলেটের সরকারি আলিয়া মাদ্রাসায়। অন্য চার শিক্ষকের মধ্যে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দাপ্তরিক কাজে ব্যস্ত থাকায় বিদ্যালয়ে পাঠদান করান তিনজন। 

এ বিষয়ে তাহিরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র মনির হোসেন বলেন, 'করোনাকালীন বন্ধের পর নতুন করে বিদ্যালয় খুললেও শিক্ষকের অভাবে আমাদের কোনো ক্লাস হচ্ছে না। এতে করে আমাদের লেখাপড়ায় ব্যাঘাত ঘটছে।' 

অভিভাবক নির্মল সরকার বলেন, 'দীর্ঘদিন ধরে তাহিরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট রয়েছে। বিদ্যালয়ে নতুন শিক্ষক না আসায় এই বিদ্যালয়ে নিয়মিত ক্লাস হচ্ছে না।' 

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. জামাল উদ্দিন বলেন, 'কয়েক বছর ধরে বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট চলছে। প্রতিদিন সব ক্লাসের পাঠদান দিতে গেলে বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হয়। তাই দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে।' 

 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ