এসএসসি-এইচএসসি নিয়ে কয়েক বিকল্প, আছে এমসিকিউ-নম্বর কমানোর চিন্তাও

এসএসসি-এইএচসি পরীক্ষা
পরীক্ষার্থী  © ফাইল ফটো

চলতি বছর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কোনোভাবেই অটোপাস দিতে চায় না শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার মাধ্যমেই ফল দিতে চায় মন্ত্রণালয়। তবে শেষ পর্যন্ত যদি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না হয়, তখন বিকল্প পন্থায় মূল্যায়ন করা হবে। এজন্য ঢাবি, বুয়েটসহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়ন করতে ইতোমধ্যে বেশ কিছু প্রস্তাব করা হয়েছে। এই প্রস্তাবগুলো খসড়া আকারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। মন্ত্রণালয় সেগুলো যাচাই-বাছাই শেষে চূড়ান্ত অনুমোদন দেবে। এরপর সংবাদ সম্মেলনে সেটি আনুষ্ঠাকিভাবে জানাবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

সূত্র জানায়, ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদকে আহবায়ক করে গড়া ১১ সদস্যের কমিটি মৌখিকভাবে কিছু প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেছেন।  এর মধ্যে রয়েছে, লিখিত পরীক্ষা বাদ দিয়ে কেবল মাত্র এমসিকিউ প্রশ্নে পরীক্ষা নেয়া। আরেকটি প্রস্তাব হচ্ছে, বিষয় ও নম্বর কমিয়ে পরীক্ষা নেয়া। এক্ষেত্রে ২০০ নম্বরের বিষয়গুলো ১০০ নম্বর করা হতে পারে।

আরও পড়ুন: সংত্রমণ ১০ শতাংশের নিচে নামলেই এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, আমরা ঘোষিত সিলেবাসের আলোকে পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। শেষ পর্যন্ত পরীক্ষা নেয়ার জন্য অপেক্ষা করতে চাই। কোনোভাবেই এবার অটোপাস দেয়া হবে না। তবে শেষ পর্যন্ত যদি পরীক্ষা নিতে নাই পারি তাহলে বিকল্পভাবে মূল্যায়ন করা হবে। মূল্যায়ন করেই ফল দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা ডিসেম্বরের মধ্যেই এই প্রক্রিয়া শেষ করতে চাই। এজন্য যতগুলো বিকল্প আছে সবগুলো নিয়েই আলোচনা চলছে। যে বিকল্প মূল্যায়নটি আমাদের জন্য উপযোগী সেটি বাস্তবায়ন করা হবে। এটি শিগগিরই শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের জানিয়ে দেয়া হবে। 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ