হলে ছাত্র লাঞ্ছনার ঘটনা ঘৃণার: কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবি

ছাত্র
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ছবি

‘মধ্যরাতে আবাসিক হলে শিক্ষার্থীকে মারধর ও লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘৃনার। বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন শিক্ষার্থী অন্য আরেক শিক্ষার্থীর সাথে এমন আচরণের এখতিয়ার রাখে না। তাছাড়া ছাত্রলীগের লাগামহীন সিট দখলের মনোভাব এবং হলে বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টির পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসনের কার্যকরী পদক্ষেপ না থাকা হতাশাজনক।’

শুক্রবার (২৪ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব আব্দুল লতিফ হলে মাধ্যরাতে ছাত্রলীগ কর্তৃক আবাসিক শিক্ষার্থীকে মারধর ও লাঞ্ছিতের পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষনিক এক প্রতিবাদে এসব কথা জানান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

প্রাধ্যক্ষের কক্ষে আলোচনায় বসা শিক্ষকরা এমন ঘৃণিত ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, একটা বিশ্ববিদ্যালয় এভাবে চলতে পারে না। প্রতিনিয়ত সাধারণ শিক্ষার্থীরা হলে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের দ্বারা শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। শিক্ষক হয়ে আমরা সেটা মেনে নিতে পারিনা। এখন পর্যন্ত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোন দৃষ্টান্ত পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। এঘটনায় শিক্ষকরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। 

পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সালেহ আহমেদ নকীব বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে প্রতিনিয়ত ছাত্রলীগে লাগামহীন দৌরাত্ম হলের সুষ্ঠু পরিবেশকে নষ্ট করে ফেলছে। ফলে শিক্ষার্থীদের জন্য ছাত্রলীগ হুমকি হয়ে উঠছে। এভাবে একটি বিশ্ববিদ্যালয় চলতে পারে না। এভাবে মুক্ত চিন্তার বিকাশ হতে পারে না। শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশ ব্যহত হচ্ছে। তাই অবিলম্বে হলগুলোতে এমন ঘটনা নিরসনে কার্যকরী পদক্ষেপ জরুরি বলে মনে করেন তিনি। এমনকি একেকে পর এক হলে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কার্যকরী কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় প্রশাসনকে জবাবদিহিতার আওতায় আনার কথা জানান এ অধ্যাপক। 

আরও পড়ুন: করোনায় আরও ১ হাজার ৬৮৫ জন আক্রান্ত

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, হলে শিক্ষার্থী লাঞ্ছত হওয়ার বিষয়টি শুনেছি। বিষয়টি প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়ে প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক এ এইচ এম মাহবুবুর রহমান বলেন, এ ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনা হবে।

আলোচনাকালে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সালেহ হাসান নকীব, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক কুদরত-ই জাহান  ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. কুদরত-ই জাহান, আরবি বিভাগের অধ্যাপক  ইফতিখারুল আলম মাসউদ, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ফরিদ উদ্দীন খান প্রমুখ।

এরআগে, আজ রাত ২টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব আব্দুল লতিফ হলের ২৪৮ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী মুন্নাকে মধ্যরাতে মারধর ও লাঞ্ছিতের ঘটনার অভিযোগ উঠেছে হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম ও তার অনুসারী ছাত্রলীগকর্মী পারভেজ ও তওহীদ বিরুদ্ধে। তবে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন তারা। ভুক্তভোগী মুন্না ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের ২০১৯-২০ সেশনের শিক্ষার্থী ।


x

সর্বশেষ সংবাদ