ভর্তি ফি থেকে ঢাবির এবারের আয় কত?

ভর্তি ফি
ঢাবি লোগো ও ভর্তি পরীক্ষার্থী  © ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি ফি বাবদ আয় হয়েছে প্রায় ৩০ কোটি টাকা। অনলাইন সার্ভিস চার্জ ও ব্যাংক পেমেন্ট সার্ভিস চার্জ বাদি দিয়ে এই আয়ের পরিমাণ প্রায় ২৮ কোটি টাকা।

ঢাবির অনলাইন ভর্তি কমিটির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে পাঁচটি ইউনিটে সর্বমোট আবেদন করেছেন  ২ লাখ ৯০ হাজার ৪৮০ জন। ভর্তি পরীক্ষায় আবেদন ফি ছিল এক হাজার টাকা। প্রতিটি আবেদনের পেছনে সার্ভিস চার্জ ও ব্যাংক পেমেন্ট সার্ভিস চার্জ বাবদ ৪৩ টাকা ৫০ পয়সা খরচ ছিল। এই খরচ বাদ দিলে আবেদন ফি থেকে ২৭ কোটি ৭৮ লাখ ৪৪ হাজার ১২০ টাকা আয় করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ঢাবির ২০২১-২২ অর্থ বছরের সংশোধিত ও ২০২২-২৩ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট বিবরণী থেকে জানা গেছে, চলতি শিক্ষাবর্ষে স্নাতক ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরি, শিক্ষকদের ফিসহ অন্যান্য খরচ বাবদ ভর্তি পরীক্ষায় ব্যয় হয়েছে  ১১ কোটি ২৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে শিক্ষক ও অন্যান্যদের পারিশ্রমিক বাবদ ৮ কোটি, কাগজ ও মুদ্রণ ফি বাবদ ১ কোটি ৮৫ লাখ এবং অন্যান্য ব্যয় হিসেবে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা খরচ হয়েছে। সে হিসেবে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি ফি থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ লাভ করেছে ১৭ কোটি টাকারও বেশি।

আরও পড়ুন: পাঁচ বছরে শতকোটি টাকার হিসাব নেই জাবির বাজেটে 

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ এর সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দেন।

পরে কোষাধক্ষ্য মমতাজ উদ্দিন আহমেদকে কল করা হলে তিনি বলেন, অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন বাজেটে ভর্তি পরীক্ষা থেকে আয়-ব্যয়ের যে হিসাব দেখানো হয়েছে সেটি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চাপিয়ে দেওয়া হিসাব। ভর্তি পরীক্ষা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়ের কোনো সুযোগ নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ভর্তি পরীক্ষার খরচ বিদ্যমান ফি দিয়ে সংকুলান না হওয়ায় গত ৬ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমিটির সভায় ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে আবেদন ফি এক হাজার টাকা করার সিদ্ধান্ত হয়।


x

সর্বশেষ সংবাদ