রাবির মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে গবেষণা ল্যাব ও সেমিনার উদ্বোধন 

রাবির মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে গবেষণা ল্যাব ও সেমিনার উদ্বোধন 
রাবির মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে গবেষণা ল্যাব ও সেমিনার উদ্বোধন   © টিডিসি ফটো

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে তিনটি গবেষণা ল্যাব ও আধুনিক সেমিনার লাইব্রেরী উদ্বোধন করা হয়েছে। রবিবার (১৯ জুন) দুপুরে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে সেমিনারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ উদ্বোধনী কাজ সম্পন্ন হয়।

অনুষ্ঠানে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সভাপতি বিশ্বনাথ শিকদারের সভাপতিত্বে প্রাধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যদ্বয় অধ্যাপক চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া ও অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম।

জানা যায়, ২০২০ সালের ১৭ ডিসেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের তিনটি গবেষণা ল্যাব প্রতিষ্ঠিত হয়। ল্যাব তিনটি হলো- মলিকুলার মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব, মাইক্রোবিয়াল
জিনোমিক্স ল্যাব, মাইক্রোবায়োলজি এন্ড বায়োটেকনোলজি ল্যাব। বিভাগের এই ল্যাবগুলোতে আরটি,পি সি আর ও ফ্লেরোসেন্স মাইক্রোস্কপসহ উন্নতমানের মাইক্রোস্কোপ, ইলেকট্রোপেরেটর, ন্যানোড্রপ, বায়োসেপটি কেবিনেট লেভেল-২, অক্টোব্লেড, কুলিং এন্ড হিটিং ইনস্টিবেটর, জেল ডকুমেনটেশান যন্ত্র সহ অন্যান্য আধুনিক যন্ত্রপাতি রয়েছে। যার সাহায্যে মলিকুলার বায়োলজি, জেনোমিক্সসহ আধুনিক গবেষণা করা সম্ভব। 

ডিজিটাল সেমিনার লাইব্রেরীতে মাইক্রোবায়োলজি রিলেটেড প্রায় দুইশত আপডেট বুক ও জার্নাল বিদ্যামান। ছাত্রছাত্রীদের জন্য ইন্টারনেট সুবিধাসহ ১৫টি কম্পিউটার বিদ্যামান। এছাড়া এনিম্যাল এক্রপেরিমেন্টাল ল্যাব, প্লান্টমাইক্রো-বায়োলজি ল্যাব এবং বায়োইনফর মেটিক্স ও ড্রাগ ডিজাইন ল্যাব নামে তিনটি ল্যাব চালু হতে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক অমিত কুমার দত্ত ও ফারুক হাসানের সঞ্চালনায় উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, বর্তমান সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে প্রযুক্তিগত অগ্রগতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা প্রযুক্তিগত শক্তিবলে গোটা বিশ্ব নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। তাই প্রযুক্তির জ্ঞান ও এর সঠিক ব্যবহারের বিকল্প নেই। 

অনুষ্ঠানে এ বিভাগের প্রতিষ্ঠিত ল্যাব ও সেমিনার দেখে সন্তোষ প্রকাশ করে উপাচার্য বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক গবেষণাকে সামনের দিকে অগ্রসর করতে এই ল্যাবগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ল্যাব ও সেমিনারে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নতুন নতুন গবেষণার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন উপাচার্য। 

এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগের সভাপতি, ইনষ্টিটিউটের পরিচালকবৃন্দসহ সিনিয়র শিক্ষক, কর্মকর্তা ও ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।


x

সর্বশেষ সংবাদ