‘প্রভোস্ট নিখোঁজ’— ক্যাম্পাসজুড়ে বিজ্ঞপ্তি

হল প্রভোস্টের নিখোঁজ বিজ্ঞপ্তিতে ছেয়ে গেছে ঢাবি ক্যাম্পাস
হল প্রভোস্টের নিখোঁজ বিজ্ঞপ্তিতে ছেয়ে গেছে ঢাবি ক্যাম্পাস  © সংগৃহীত

মাস্টারদা সূর্যসেন হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক মোহাম্মদ মকবুল হোসেন ভুঁইয়ার ‘নিখোঁজ’ বিজ্ঞপ্তিতে ছেয়ে গেছে পুরো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। রবিবার (২৮ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হল সংলগ্ন দেয়াল, স্যাডু, মধুর ক্যান্টিন, টিএসসিসহ বেশ কয়েকটি জায়গায় এ বিজ্ঞপ্তি দেখা গেছে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, অধ্যাপক মকবুল হোসেন নিখোঁজ হননি। শিক্ষার্থীদের ‘যৌক্তিক’ দাবিতে কর্ণপাত না করা, হলের সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ না নেওয়া এবং বেশিরভাগ সময় অফিসে না থাকায় বিক্ষুব্ধ একদল শিক্ষার্থী এ বিজ্ঞপ্তি ক্যাম্পাসে লাগিয়ে দেন।

সূর্যসেন হলের এক শিক্ষার্থী বলেন, কিছুদিন আগে হলে শিক্ষার্থী মারধরের ঘটনায় প্রভোস্ট তেমন কোনো সমাধান দিতে পারেনি। ক্যান্টিনের খাবারের মান খারাপ, আমরা মশায় যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ কিন্তু মশা নিধনে কোনো উদ্যোগ নেই; এমন নানা সমস্যা লেগেই আছে কিন্তু প্রভোস্ট কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। তাই ক্ষুব্ধ হয়ে শিক্ষার্থীরা এমন নিখোঁজ বিজ্ঞপ্তি লাগিয়েছে।

আরেক শিক্ষার্থী বলেন, হলের মসজিদের মাইক্রোফোন নষ্ট হওয়ায় জুমআর নামাজ পড়তে সমস্যা হচ্ছে, টেনিস কোর্ট হচ্ছে না, হলের গেমস রুমে গেমস সামগ্রী নেই, পানির টেপগুলো প্রায় নষ্ট, ওয়াশরুমগুলো ঠিকমতো পরিষ্কার করা হচ্ছে না। মূলত শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে প্রভোস্ট অনীহা প্রকাশ করছেন। তাই শিক্ষার্থীরা নিখোঁজ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রতিবাদ করছে।

তবে নিখোঁজ না হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য সচিব ও প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী। এ বিষয়ে কথা বলতে সূর্যসেন হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক মকবুল হোসেনকে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে অধ্যাপক মকবুলের পক্ষ থেকে কোন ধরনের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।


মন্তব্য

x