আগামী বছর থেকে বিভাগীয় শহর হতে পারে চবির ভর্তি পরীক্ষা

করোনা
চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার  © ছবি : সংগৃহীত

আগামী বছর ভর্তি পরীক্ষা বিভাগীয় শহরে নেওয়ার বিষয়ে আমরা চিন্তা করছি। এবার করোনার কারণে এ নিয়ে কাজ করা সম্ভব হয়নি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা এবার বিভাগীয় শহরে সম্পন্ন হয়েছে। আমাদের ক্যাম্পাসেও তাদের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আশা করি আমরাও সেভাবে করতে পারব। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার হল পরিদর্শন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার এসব কথা বলেন।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথম দিন কলা ও মানববিদ্যা অনুষদভুক্ত বি ইউনিটের পরীক্ষায় দুই শিফটে ১৪ হাজার ২২৩ জন করে ভর্তিচ্ছু অংশ নেবেন।

বিশ্ববিদ্যালয় আইসিটি সেল সূত্রে জানা গেছে, এবার অনলাইনে মোট আবেদন জমা পড়েছে ১ লাখ ৮৩ হাজার ৮৬৩টি। ‘এ’ ইউনিটে এক হাজার ২১২টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ৬৮ হাজার ১০৬টি। এই ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫৬ জন। ‘বি’ ইউনিটে এক হাজার ২২১টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ৪২ হাজার ৬৬৮টি। এ ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তির জন্য লড়বেন ৩৫ জন। ‘সি’ ইউনিটে ৪৪১টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ১৩ হাজার ৯১৮টি। এ ইউনিটে প্রতি আসনে ভর্তির জন্য লড়বেন ৩২ জন। ‘ডি’ ইউনিটে এক হাজার ১৬০টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ৫৪ হাজার ২৪৯টি। সম্মিলিত এ ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে লড়বেন ৪৭ জন।

এছাড়া দুটি উপ-ইউনিটের মধ্যে ‘বি১’ ইউনিটে ১২৫টি আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে দুই হাজার ২০টি। এ উপ-ইউনিটে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তির জন্য লড়বেন ১৬ জন। ‘ডি১’ উপ-ইউনিটে ৩০টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে দুই হাজার ৯০২ টি। এ উপ-ইউনিটে আসন প্রতি লড়বেন ৯৭ জন শিক্ষার্থী।

এদিকে পরীক্ষায় যেকোনো ধরনের জালিয়াতি রোধে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ছাড়াও সাদা পোশাকেও অবস্থান করছেন কয়েকটি সংস্থার সদস্যরা।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ

x