জাবিতেও গণরুম থাকছে না

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ফটো

করোনার কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি)। ‘১৫ অক্টোবরের পর বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে’ শিক্ষামন্ত্রীর এমন নির্দেশনার পর সার্বিক প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে প্রভোস্ট কমিটির একটি মিটিং ও হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে বহুল সমালোচিত গণরুম থাকবে না মর্মে সেখানে সিদ্ধান্ত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি ও বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মুজিবুর রহমান বলেন, অনুমতি পেলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের খোলার জন্য প্রস্তুত আছি। শিক্ষার্থীদের সর্বোচ্চ সুরক্ষার জন্য যা যা করা প্রয়োজন তার সব আমরা করবো। আবাসন সংকটের জন্য সৃষ্ট গণরুমের বিষয়টিও আমাদের ভাবনায় রেখেছি।

গণরুম না থাকলে আবাসন সংকটের বিষয়টির সমাধান কিভাবে? জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালযের ৪৩তম ব্যাচের স্নাতকোত্তর শেষ এবং ৪৪ ব্যাচ শেষের দিকে। এরপর থেকে বৈধ ছাত্র ছাড়া কেউ হলে থাকতে পারবে না। হল কার্ড দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের হলে উঠতে হবে। অছাত্রদের (যাদের মাস্টার্স শেষ) হলে না উঠানোর ব্যাপারে ইউজিসির নির্দেশ পেয়েছি। দুটি ব্যাচ চলে গেলে এরপরও আবাসন সংকট থাকবে না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও গণরুম থাকছে না বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। ঢাবির প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ও বিজয় একাত্তর হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. আবদুল বাছির দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন চাচ্ছে গণরুমের শিক্ষার্থীদের মূল রুমগুলোতে সিট বরাদ্দ দিয়ে গণরুমের যে কনসেপ্ট সেখান থেকে সরে আসা। গণরুম বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকবে না।

তবে জাবির হলে আবাসন সংকট ও গণরুমের জন্য ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের নেতাদের অবৈধভাবে হলে অবস্থান ও শিক্ষাজীবন দীর্ঘায়িত করার অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে ছাত্রনেতাদের সাথে কোনো বৈঠক করেছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলেন, ছাত্র সংগঠনগুলোর সঙ্গে আমাদের এরকম কোনো মিটিং এখনো করা হয়নি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ বলেন, অছাত্রদের হলে না উঠানোর ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশন একটি পত্র পাঠিয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি এটা ফলো করার জন্য।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নুরুল আলম দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে জানান, শিক্ষার্থীরা যেন ক্যাম্পাসে পড়াশোনার সর্বোচ্চ পরিবেশ পায় তা নিয়ে আমরা কাজ করতেছি। স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য গণরুম একটি হুমকি হওয়ায় এ সমস্যা নিরসনে সকলের সহযোগিতা আশা করছি।


মন্তব্য