বাসার দরজা ভেঙে জাবি অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার

মৃত্যুবরণ
অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমান   © ফাইল ছবি

বরেণ্য লেখক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাহি রাজিউন। আজ  শনিবার (১৭ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টে নিজের ফ্ল্যাট থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় তিনি বাসায় একা ছিলেন। পুলিশ দরজা ভেঙে তাকে মৃত অবস্থায় পেয়েছেন।

রাজউকের উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রোজেক্টের প্রকল্প পরিচালক মো. মোজাফফর আহমেদ গণমাধ্যমকে ঘটনার সতত্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সকালে তারেক শামসুর রহমানের বাসায় যান গৃহকর্মী। তিনি বাইরে থেকে কলিংবেল বাজাতে থাকলেও দরজা খুলছিল না। পরে গৃহকর্মী নিচে গিয়ে বাড়ির নিরাপত্তারক্ষীকে বিষয়টি জানান। এরপর আশপাশের সবাই ওই বাসার দরজায় গিয়ে তারেক শামসুর রেহমানকে ডাকাডাকি করলেও তার সাড়াশব্দ মেলেনি।

এদিকে, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক খালিদ কুদ্দুসও দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে তার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন। 

অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) সাবেক সদস্য ছিলেন। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।

অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমানের মৃত্যুতে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এক শোকবার্তায় ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমান একজন খ্যাতিমান শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ছিলেন।

তিনি তাঁর গবেষণা ও লেখনীর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, পররাষ্ট্রনীতি, কূটনীতি ও বৈদেশিক সম্পর্কের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেছেন। ইউজিসি চেয়ারম্যান তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

অধ্যাপক রেহমান গত দু’দশক ধরে আন্তর্জাতিক রাজনীতি, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক ও বৈদেশিক নীতি নিয়ে গবেষণা করেছেন। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অধিকারী ড. রেহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেছিলেন। এ বিষয় নিয়েও তার বেশ ক’টি গ্রন্থ রয়েছে। অধ্যাপনার পাশাপাশি ড. রেহমান নিয়মিত কলাম লিখতেন। প্রায় প্রতিটি জাতীয় দৈনিকে তার কলাম নিয়মিত ছাপা হত।

তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে- ইরাক যুদ্ধ পরবর্তী আন্তর্জাতিক রাজনীতি, গণতন্ত্রের শত্রু-মিত্র, নয়া বিশ্বব্যবস্থা ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিশ্ব রাজনীতির চালচিত্র, উপআঞ্চলিক জোট, ট্রানজিট ইস্যু ও গ্যাস রফতানি প্রসঙ্গ, বাংলাদেশ: রাষ্ট্র ও রাজনীতি, বাংলাদেশ: রাজনীতির ২৫ বছর, বাংলাদেশ: রাজনীতির চার দশক, গঙ্গার পানি চুক্তি: প্রেক্ষিত ও সম্ভাবনা, সোভিয়েত-বালাদেশ সম্পর্ক, বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর ইত্যাদি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ