ফ্রান্স পণ্য বয়কট, ছেলেকে নিয়ে অবস্থান কর্মসূচিতে ঢাবি শিক্ষক

অবস্থান কর্মসূচিতে বাবা-ছেলে
অবস্থান কর্মসূচিতে বাবা-ছেলে  © টিডিসি ফটো

সম্প্রতি ফ্রান্সে মহানবী (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. ইমরান হোসেন। অবস্থান কর্মসূচিতে তার সঙ্গে তার ছেলে আব্দুল্লাহ ইরফানও (০৬) অংশ নিয়েছেন। কর্মসূচি থেকে তারা ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের আহবান জানান।

আজ সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে বাবা ইমরানের হাতে ‘বয়কট ফ্রান্স প্রোডাক্ট’ ও ছেলের হাতে ‘উই লাভ প্রপেট মুহাম্মদ’ (সা.) সংবলিত প্ল্যাকার্ড দেখা গেছে।

মো. ইমরান হোসেন বলেন, ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয়ভাবে ইসলাম বিদ্বেষ ছড়ানো হয়েছে। দেশটির সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে তাদের হিংসাত্মক মনোভাব প্রকাশ করেছেন। প্রত্যেক ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উচিৎ যার যার জায়গা থেকে এর প্রতিবাদ করা। একজন মুসলিম হিসাবে আমরা এ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি। আমরা ফ্রান্সের সকল পণ্য বয়কটের আহবান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, অনেকে আমাদের বাবা-ছেলের কর্মসূচিকে লোক দেখানো মনে করে ভুল করতে পারেন। এখানে লোক দেখানোর কিছু নেই। মুসলিম হিসাবে ঈমানী দায়িত্ব মনে করে এখানে অবস্থান নিয়েছি। সবার এভাবে প্রতিবাদ করা উচিৎ। ফ্রান্স সরকারকে এর জন্য ক্ষমা চাইতে হবে।

গত ১৬ অক্টোবর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের শহরতলী এলাকায় এক স্কুলশিক্ষককে গলা কেটে হত্যা করা হয়। হত্যাকারী সম্পর্কে পুলিশ জানায়, হামলাকারীর বয়স ১৮ বছর। তিনি চেচেন জাতিগোষ্ঠীর এবং জন্ম রাশিয়ার মস্কোতে। নিহত ওই শিক্ষক রাষ্ট্রবিজ্ঞান পড়াতেন। ‘মতপ্রকাশের স্বাধীনতা’ ক্লাসে তিনি শিক্ষার্থীদের মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর কার্টুন দেখিয়ে ছিলেন। তার পর তাকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনার পর ফ্রান্সের পুলিশ দেশটির অন্তত ৫০টি মসজিদ ও মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় ভয়াবহ অভিযান চালায়। সাড়ে পাঁচ বছর আগে হজরত মুহাম্মদ (সা.) বিতর্কিত কার্টুন ছাপানোর পর ফ্রান্সের ব্যঙ্গাত্মক ম্যাগাজিন শার্লি এবদোতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। আবারও সেটি ছাপিয়েছে ম্যাগাজিনটি। এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠলেও এর পক্ষে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরোঁ।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ