ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছুদের সাধারণ জ্ঞানের সবশেষ প্রস্তুতি

ভর্তি পরীক্ষা
সাকিব শাহরিয়ার  © টিডিসি ফটো

আগামী ৯, ২২ ও ২৩ অক্টোবর যথাক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়র ‘চ’, ‘গ’ এবং ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।  এ বিভাগগুলোতে ভর্তিচ্ছুদের যে বিষয়গুলোতে প্রস্তুতি নিতে হবে, সাধারণ জ্ঞান সেগুলোর একটি। ভর্তিচ্ছুদের সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতি নিয়ে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসে লিখেছেন জিকে প্যানাসিয়ার লেখক সাকিব শাহরিয়ার।

‘‘আমাদের দেশে উচ্চশিক্ষার প্রশ্ন উঠলেই সকলে চায় পাবলিক কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে। সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পারাটা এখনো যেমন প্রেস্টিজিয়াস তেমনি প্রায় বিনা টিউশন ফি তে। মধ্যবিত্ত মেধাবীর উচ্চশিক্ষার স্বপ্নপূরণ তাই সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় অথবা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়ে খুব একটা বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে যায় না।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বিশ্ববিদ্যালয় বাছতে গেলে আমাদের মাথায় প্রথম যে নামটি আসে সেটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির দুটি ইউনিটে আমাদের সাধারণ জ্ঞান পড়ার প্রয়োজন হয়। খ ইউনিট অর্থাৎ মানবিকের শিক্ষার্থীদের ভর্তি উপযোগী ইউনিট এবং ঘ বা বিভাগ পরিবর্তন ইউনিটে সাধারণ জ্ঞান থেকে প্রশ্ন হয়ে থাকে। এবছর ইতোমধ্যে খ ইউনিটের পরীক্ষা শেষ হয়েছে। এই পরীক্ষাটি আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্নের ধরণ পুরোপুরি টেক্সটবই নির্ভর হতে চলেছে। তবে, খ ইউনিট থেকে ঘ ইউনিটের প্রশ্নের ধরন কিছুটা ব্যতিক্রম।

সুতরাং, খ ইউনিটের অপ্রত্যাশিত অভিজ্ঞতা বা প্রশ্নের ধরণ দেখে ভয় পেয়ে যাওয়ার কিছু নেই। সাধারন জ্ঞানের নাম্বার ঘ ইউনিটে মোট নাম্বারের অর্ধেক। সুতরাং, এটি বলার অপেক্ষা রাখে না যে একটি সিট নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সাধারণ জ্ঞান তোমাকে সবচেয়ে বেহসি এগিয়ে রাখবে। কাজেই এখন সব চিন্তা ঝেড়ে ফেলে ঘ ইউনিটের জন্য প্রস্তুতিকে জোরদার করতে হবে। আর এক্ষেত্রে সাধারণ জ্ঞান রিভিশনের ধরণটা কী হবে?

সাধারণ জ্ঞানে ভালো প্রস্তুতির জন্য প্রথমেই তোমাকে অবশ্যই ম্যাপ বা মানচিত্রের খুটিনাটি মাথায় রাখতে হবে। প্রতিটি বিষয়ের একটা বেইসিক থাকে আর সাধারণ জ্ঞানের বেইসিক হচ্ছে মানচিত্র। কাজেই মানচিত্রটাকে ভালোমতো আয়ত্ত করতে হবে। প্রতিটি দেশের অবস্থান ও ভৌগলিক ব্যাপারগুলা মাথায় রাখতে পারলে যেকোনো প্রশ্নের উত্তর করা তোমার জন্য সহজ হয়ে যেতে বাধ্য। অনেকেই এরকম মনে কর যে, সাধারণ জ্ঞান কেবল ঝাড়া মুখস্ত করলেই ভালো করা সম্ভব। কিন্তু, সাধারণ জ্ঞান মুলত অনেকগুলো মৌলিক বিষয় যেমন ভুগোল, ইতিহাস, পৌরনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান, দর্শন, ধর্ম ইত্যাদি নানা বিষয়ের সাথে সাথে ভূ-রাজনীতি ও সমসাময়িক নানা বিষয়ের কম্বিনেশন মাত্র। ‘চ’ ইউনিটের জন্যও সাধারণ জ্ঞান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

ঘ ইউনিটের পরীক্ষার আগে এই অল্প সময়ে তোমাদের উচিত হবে বিগত বছরগুলোর প্রশ্ন বিশ্লেষন করে যে গুরুত্বপূর্ন বিষয়গুলো থেকে অতীতে বারবার প্রশ্ন এসেছে সেগুলো কোনো বই থেকে বারবার পড়া। এছাড়া, সাম্প্রতিক বিষয়গুলোর জন্য কারেন্ট এফেয়ার্স এবং দৈনিক পত্রিকার আন্তর্জাতিক পাতাটি তোমাদের জন্য অত্যন্ত সহায়ক হতে পারে। ঘ ইউনিটে যেসব টপিক থেকে বেশি বেশি প্রশ্ন আসে যেমন মুক্তিযুদ্ধ, নানা জাতীয় বিষয়, সংবিধান, সীমান্ত সীমারেখা, নানা গোয়েন্দা সংস্থা, গেরিলা দল, বিভিন্ন গ্রন্থ, পত্র-পত্রিকা, আমেরিকা-চীন-ভারত-রাশিয়া, জাতিসংঘ ও অন্যান্য সংস্থা-সদরদপ্তর, খেলাধুলা, নানা রিপোর্ট-জরিপ, বিভিন্ন স্থান-স্কয়ার-অফিস ইত্যাদি বিষয়াবলীর সাথে সাথে এ বছরের সাম্প্রতিক নানা গুরুত্বপুর্ণ ঘটনাবলী যেমন নানা সংঘাত, মহাকাশ অভিযান, অলিম্পিক, ফুটবলের দুই বড় আসর কোপা ও ইউরো, করোনাভাইরাস ও টিকা সম্পর্কে নানা তথ্য ইত্যাদি ভালো করে আয়ত্ব করতে হবে।

শেষ কয়েকটা দিনে বারবার মডেল টেস্ট দেয়া বা, প্রশ্ন ধরে পরীক্ষা দেয়াটা খুব কার্যকরী উপায়। এতে মনে থাকার পরিমান বাড়ে। পড়াশোনাটা তো তোমরা সবাই কম বেশি করেছো কিন্তু এই মুহুর্তে যেহেতু মনে রেখে পরীক্ষাতে সেগুলো ঠিকঠাক দিয়ে আসাটাই বড় চ্যালেঞ্জ সেহেতু ছায়া পরীক্ষা বা মডেল টেস্ট তোমাদের জন্য এই মুহুর্তে অনেক গুরুত্ব বহন করছে। বারবার পরীক্ষা দিলে তোমার ভেতর পরীক্ষা দেয়ার অভ্যস্ততা তৈরি হয় যার ফলে মূল পরীক্ষার সময়ে অপশন দেখে কনফিউজড হয়ে যাওয়া, মাথা ফাঁকা হয়ে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যা থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব হয়।

করোনার ছোবল থেকে আমরা সবেমাত্র সুস্থ হয়ে উঠছি। সকল বিশ্ববিদ্যালয় এখন পর্যায়ক্রমে পরীক্ষা নিচ্ছে। এই সময়ে সুস্থ্যতার সাথে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করাটাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার। কাজেই সকলে নিজের স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রেখে নিজেদের প্রস্তুতিকে শাণিত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্নের দিকে আরো এক ধাপ অগ্রসর হবে এই কামনা রইলো। দোয়া ও শুভকামনা।’’


লেখক: সাধারণ জ্ঞান বিষয়ক কোচিং ইন্সট্রাক্টর


মন্তব্য

x