গুচ্ছ ‘বি’ ইউনিট ভর্তি প্রস্তুতি নেবেন যেভাবে

ভর্তি প্রস্তুতি
বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি  © প্রতীকী ছবি

এ বছর প্রথমবারের মতো ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় একসঙ্গে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক তারিখ ঘোষণা হলেও করোনা মহামারির কারণে পিছিয়ে। এটি নিশ্চিত।  প্লান মাফিক পড়াশোনা করলে ২০টির যেকোন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি সিট দখলে নেওয়া সম্ভব। আজকে ‘বি’ ইউনিটে কিভাবে ভালো করা যায় তা নিয়েই আলোচনা করা হবে—

আলোচনার আগে দেখে নেয়া যাক গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন-

মোট নম্বর- ১০০

বাংলা -৪০
ইংরেজি -৩৫
আইসিটি - ২৫
মোট = ১০০ নম্বর

‘বি’ ইউনিটে ভালো করতে হলে প্রথমেই গুরুত্ব দিতে হবে পাঠ্যবইয়ের বেসিক ধারণাগুলো এবং সময় ব্যবস্থাপনার প্রতি। ভর্তি পরীক্ষায়  ভালো মার্ক পেতে হলে জোর দিতে হবে মূল বইয়ের উপর৷  

প্রথমবার গুচ্ছ হওয়ায় কোনো প্রশ্ন ব্যাংক বাজারে পাওয়া যায় না তাই প্রশ্ন প্যাটার্ন নিয়ে অনেকের হাজারো প্রশ্ন। তবে ভীত হওয়ার কিছু নেই। একে একে সবগুলো বিষয় নিয়ে কিভাবে প্রিপারেশন নিতে হবে সেটা বিস্তারিতভাবে লিখছি-

বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি  

বাংলা- ৪০ নম্বর
বিগত বছরগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গদ্য ও কবিতা অংশ থেকে বেশ কিছু প্রশ্ন প্রতিবার আসে। সেক্ষেত্রে গদ্যের মূল বিষয়, গদ্য লেখক পরিচিতি, তাঁর সাহিত্যকর্ম, জীবনী ইত্যাদি বিষয় জানতে হবে। কবিতা ও উপন্যাসের ক্ষেত্রেও তাই।

ব্যাকরণ অংশের জন্য ভাষা, বাংলা ভাষা, ব্যাকরণ, শব্দ, কারক, সমাস, সন্ধি, বিভক্তি, বচন, বাক্য সংকোচন, বাগধারা, উপসর্গ, অনুসর্গ বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ। এগুলোর ভালো অনুশীলন দরকার।

ইংরেজি- ৩৫ নম্বর
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাগুলোতে ইংরেজির ক্ষেত্রে গ্রামার অংশে অধিক জোর দেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে Parts of speech, Article, Tense, Voice, Narration, Correction, Right form of verbs, Translation, Synonyms,  Antonyms, Transformation of sentences, Joining sentence, Comprehension প্রভৃতি বিষয় ভালোভাবে পড়তে হবে। পাশাপাশি ইংরেজ কবি ও সাহিত্যিক, বিশেষ করে যাদের লেখা এইচএসসির সিলেবাসে রয়েছে তাদের জীবনও সাহিত্যকর্ম, লেখার বিষয়, উদ্ধৃতি ইত্যাদি খুঁটিনাটি বিষয়ও মনে রাখতে হবে।

আইসিটি- ২৫ নম্বর
আইসিটি প্রস্তুতির জন্য উচ্চমাধ্যমিক পাঠ্যবইয়ের গ্লোবাল ভিলেজের উপাদান, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি, ক্রায়োসার্জারি, বায়োমেট্রিক্স, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং, ন্যানো টেকনোলোজি। ডেটা ট্রান্সমিশন (মোড, মাধ্যম, এলিমেন্ট), ওয়াইফাই, ওয়াইম্যাক্স, হাব ও সুইচ, নেটওয়ার্ক, ক্লাউড কম্পিউটিং।

এর পরিপূরক, লজিক গেইট, সার্বজনীন গেইট, এনকোডার, ডিকোডার, হাফ/ফুল এডার বাস্তবায়ন। ওয়েবসাইট কাঠামো, HTML, কম্পাইলার, ইন্ট্রারপোলার, ডেটা টাইপ, অ্যালগরিদম ও ফ্লোচার্ট সেলেসিয়াস ও ফারেনহাইট, লিপ ইয়্যার, সমান্তর ধারা, DBMS ভালো করে পড়লেই এনাফ।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতির সুবিধার্থে বাজারে বিভিন্ন সহায়ক বই পাওয়া যায়। পরীক্ষা ও প্রশ্নপত্রের ধরন জানার জন্য সেগুলো সহায়ক। তবে সঠিক উত্তরগুলো অন্য উৎস থেকেও যাচাই-বাছাই করে নিন। অনেক সময় ছাপার ভুল থাকে।

শেষ করার আগে আবারও বলি, এসএসসি ও এইচএসসির মূল পাঠ্য বিষয় যদি ভালোভাবে পড়ে থাকো তাহলে ভর্তি পরীক্ষায় ভালো করা সম্ভব।

লেখক: সিইও, ডিইউ মেনটরস


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ