রোজার ঈদের পরেই রাবি ছাত্রলীগের সম্মেলনের তারিখ: জয়

রাবি
বক্তব্যে রাখছেন আল নাহিয়ান খান জয়  © টিডিসি ফটো

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্যেকটা শিক্ষার্থী মেধাবী। হলগুলোতে যেন যোগ্য নেতৃত্ব আসে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আসন্ন রোজার ঈদের পরেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্রলীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হবে।

আজ সোমবার (১৪ মার্চ) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবাস বাংলাদেশ মাঠে অনুষ্ঠিত ছাত্রলীগের সমন্বিত হল সম্মেলনে এসব কথা বলেন কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়।

নতুন নেতৃত্ব শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করবে উল্লেখ করে জয় বলেন, এই হল সম্মেলনের মাধ্যমে এমন নেতৃত্ব উঠে আসবে, যারা আগামীর বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাবে। যারা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে এগিয়ে যাবে, যারা নিজের পকেটে টাকা না থাকলেও তার রুমের শিক্ষার্থী বন্ধুদের জন্য খাবারের প্রয়োজন হলে খাবারের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করেন। যারা হসপিটালে থাকা মুমূর্ষু বন্ধুর সেবা করার জন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকবে।

তিনি আরও বলেন, এই হল সম্মেলনে এমন এক নেতৃত্ব উঠে আসবে, যারা নিঃস্বার্থভাবে শিক্ষার্থীদের জন্য কাজ করবে, নিজের কথা চিন্তা না করে জাতির পিতার আদর্শ বাস্তবায়ন করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করবে। আমাদের কোনো কর্মকান্ডে যেন আমাদের নেত্রীর উন্নয়ন কর্মকান্ড হোচট না খায়। ছাত্রলীগের প্রতিটা নেতাকর্মী নিঃস্বার্থভাবে কাজ করার পাশাপাশি সকলের কাছে ভালোবাসার একটি জায়গা তৈরি করবে এমনটা প্রত্যাশা করেন এই কেন্দ্রীয় সভাপতি।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়ামের অন্যতম সদস্য এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল সরকার, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ আলী কামাল, আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য ডা. আনিকা ফারিয়া জামান অর্ণা, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, সহ-সভাপতি খালিদ হাসান নয়ন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৮ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ২৫তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ১১ ডিসেম্বর গোলাম কিবরিয়াকে সভাপতি ও ফয়সাল আহমেদ রুনুকে সাধারণ সম্পাদক করে ১ বছর মেয়াদী একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়। তবে কমিটির মেয়াদ পাঁচ বছর হলেও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘোষিত হয়নি নতুন কমিটি।


সর্বশেষ সংবাদ