অলিম্পিক ইতিহাসে নাম লেখালেন সিরিয়ার ছোট্ট মেয়েটি

টোকিও অলিম্পিক
হেন্দ জাজা  © সংগৃহীত

অলিম্পিকসের আঙিনায় পথচলা থেমেছে প্রথম রাউন্ডে। তিনগুণের বেশি বয়সী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে লড়েছেন। পেরে ওঠেননি। কিন্তু তাতে কী? খেলতে নেমেই যে দারুণ এক কীর্তি গড়ে ফেলেছেন হেন্দ জাজা। গৃহযুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ার ১২ বছর বয়সী এই টেবিল টেনিস খেলোয়াড়ই টোকিওর আসরের সবচেয়ে কম বয়সী অ্যাথলেট!

অস্ট্রিয়ান প্রতিপক্ষ ৩৯ বছর বয়সী লিউ জিয়ার কাছে শনিবার ৪-০ ব্যবধানে হেরে জাজা বিদায় নিয়েছেন প্রথম রাউন্ড থেকে। কিন্তু সিরিয়ার হামাতে জন্ম নেওয়া এই অ্যাথলেটের সব বাধা পেরিয়ে আসার গল্প যে কারো জন্যই হতে পারে অনুপ্রেরণার অফুরান উৎস।

ইন্টারন্যাশনাল টেবিল টেনিস ফেডারেশনের নথিপত্রে জাজার জন্ম ২০০৯ সালের ১ জানুয়ারি। অর্থাৎ তার বর্তমান বয়স ১২ বছর ২০৫ দিন। টোকিওর আসরে তার পর সবচেয়ে কম বয়সী অ্যাথলেট বৃটেনের ১৩ বছর বয়সী স্কেটবোর্ডার স্কাই ব্রাউন।

ক্রীড়া পরিবারের জাজার জন্ম। খেলাধুলার আঙিনায় তার পা পড়তে তাই খুব বেশি দেরি হয়নি। টেবিল টেনিসে যখন হাতে খড়ি হয়, তখন তার বয়স ছিল মাত্র ৫ বছর! কিন্তু পথচলা ছিল না মোটেও মসৃণ।

একে তো যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ার নানা প্রতিকূলতা, তার সঙ্গে যোগ হয় গত বছর থেকে প্রকট আকার ধারণ করা করোনাভাইরাস নামক এক বৈশ্বিক মহামারী। সবকিছুই পথ আগলে দাঁড়ায় জাজার। গৃহযুদ্ধের কারণে এক বছরে দেশের বাইরে খেলতে পেরেছেন মাত্র ২/৩টি ম্যাচ। কিন্তু ছোট মেয়েটি দমে যায়নি কিছুতেই।

গত বছরই জর্ডানের আম্মানে হওয়া ওয়েস্টার্ন এশিয়া অলিম্পিক কোয়ালিফিকেশনে আলো কেড়ে নেন জাজা। সবাইকে চমকে দিয়ে সেরা হয়ে টোকিওর মঞ্চে আসার টিকেট অর্জন করেন।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে হওয়া ‍ওই প্রতিযোগিতার ফাইনালে লেবাননের মারিয়ানা সাহাকিয়ানকে ৪-৩ ব্যবধানে হারিয়ে দারুণ এক কীর্তি গড়েন জাজা। সিরিয়ার প্রথম টেবিল টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে অর্জন করেন অলিম্পিকে সরাসরি খেলার যোগ্যতা।

কিন্তু জাজাই কি সবচেয়ে কম বয়সী অলিম্পিয়ান? টোকিও অলিম্পিকসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ১০ বছর বয়সী গ্রিক জিমন্যাস্ট দিমিত্রিওস লাউনদ্রাস আজও এই রেকর্ডের অধিকারী। ১৮৯৬ সালে এথেন্স অলিম্পিকে অংশ নিয়ে ব্রোঞ্জও জিতেছিলেন তিনি।

১৯৬৮ সালের শীতকালীন অলিম্পিকসে ফিগার স্কেটিংয়ে অংশ নেন ১১ বছর বয়সী বিট্রিস হুস্টিউ; এ হিসাবে হুস্টিউর পর অর্ধশতাব্দীর বেশি সময়ের মধ্যে জাজাই সবচেয়ে কম বয়সী অলিম্পিয়ান।

রয়টার্স তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ১৯৯২ অলিম্পিকে অংশ নেওয়া স্প্যানিশ রোয়ার ১১ বছর বয়সী কার্লোস ফ্রন্তের পর সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে অলিম্পিকের আঙিনায় পা পড়েছে জাজার।

যত বিতর্কই থাকুক, আইটিটিএফ অনূর্ধ্ব-১৩ বছর বয়সীদের এককের র‌্যাঙ্কিংয়ে বর্তমানে ৪৬তম স্থানে থাকা জাজা যে অলিম্পিকের ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সীদের তালিকায় একজন, তা নিয়ে প্রশ্ন নেই মোটেও।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ