‘ইন্দিরা গান্ধী’ পুরস্কার পাচ্ছেন ববি শিক্ষার্থী

ববি
লেখক মাকসুদ খান সোহান  © ফাইল ছবি

সাহিত্যকর্ম ও মানবকল্যাণে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ 'ইন্দিরা গান্ধী সাহিত্য পুরস্কার' ও সনদপত্র গ্রহণের জন্য মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশি তরুণ কবি ও সাংস্কৃতি কর্মী বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থী লেখক মাকসুদ খান সোহান।

 ভারত বাংলাদেশ সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত ‘ভারত বাংলাদেশ সাহিত্য সংস্কৃতি উৎসব-২০২২’ এ পুরস্কার গ্রহণের নিমন্ত্রণ পেয়েছেন তিনি।

লেখক মাকসুদ খান সোহান বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর ভারতের কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে এই পদক প্রদান অনুষ্ঠিত হবে। এতে ভারত ও বাংলাদেশের কবি, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, গবেষক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক কর্মী, সাংবাদিক ও বরেণ্য ব্যক্তিরা উপস্থিত থাকবেন।

নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করে লেখক মাকসুদ খান সোহান বলেন, ছোটবেলা থেকেই আমি সাহিত্য চর্চা করি। কিন্তু কখনো নিজের বই হবে, সাহিত্য চর্চার জন্য পুরস্কৃত হবো আশা করি নি। এই পুরস্কার টা পাওয়ার পর সাহিত্যচর্চার উৎসাহ আরো অনেকগুণ বেড়ে গেলো।তবে এই পুরস্কারের সবটা কৃতিত্বই আমার পরিবার, শিক্ষক, বন্ধু-বান্ধব, এবং পাঠকদের। 

আরও পড়ুন: প্রথম রিলিজ স্লিপে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির তারিখ ঘোষণা

এর আগে লেখক মাকসুদ খান "লেখক উন্নয়ন কেন্দ্র" থেকে  কাব্য সাহিত্যে কবি জসিমউদ্দিন কবিতা পুরস্কার ২০২২ পেয়েছেন।

অভিনন্দন জানিয়ে ববি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ ছাদেকুল আরেফিন বলেন, 'আমি মনে করি আগামী প্রজন্ম সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চার মধ্য দিয়ে বিজ্ঞান মনস্ক প্রগতিশীল মানসিকতা তৈরি করবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা তৈরি করার জন্য তাঁর সাহিত্য ও সংস্কৃতি কর্ম অবদান রাখবে, এই অবদান রাখারা পেছনে তাঁর এই পুরস্কারটি উৎসাহব্যঞ্জক হিসেবে কাজ করবে।'

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান, সহকারী অধ্যাপক  সোহেল  রানা বলেন, 'মাকসুদ খান সোহান আমার বিভাগের চতুর্থ ব্যাচের মেধাবী শিক্ষার্থী  সাহিত্য ও সংস্কৃতির প্রতি তাঁর যে আনুরাগ আগ্রহ অনেক আগে থেকেই আমি লক্ষ্য করেছি এবং ব্যক্তিগত জায়গা থেকে উৎসাহ উদ্দীপনা দিয়েছি। সাহিত্যে মাকসুদ খান সোহানের এমন একটি পুরস্কারে মনোনীত হওয়ার জন্য আমি খুবই গর্বিত। সেই সাথে সাথে আমি তাঁর পরবর্তী জীবনের জন্য উত্তর উত্তর সাফল্য কামনা করছি। বাংলা সাহিত্যের তাঁর যে অবদান সেটি অব্যাহত থাকুক সমৃদ্ধ ও সফল  হোক সেই দোয়া ও শুভকামনা করি।'

ববি কালচারাল কমিটির আহ্বায়ক সহকারী অধ্যাপক, সুপ্রভাত হালদার বলেন, 'মাকসুদ খান সোহান একজন গুণি লেখক এবং সাংস্কৃতিক কর্মী। তাঁর এই পুরস্কার প্রাপ্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য যেমন গর্বের তেমনি ববি কালচারাল কমিটির আহ্বায়ক হিসাবে আমার কাছেও আনন্দের। তাঁর এই কর্যক্রম আরো বেশি প্রসারিত হোক নিজের ও বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম আরও উজ্জ্বল করুক এই কামনা জানায়।'

ইতোমধ্যে লেখকের লেখা তিনটি বই  'কবিতার উঠোন'' ( সংকলন) 'কাব্যশ্রী' ও 'জয়া' প্রকাশিত হয়েছে। আশিক ইসলাম সম্পাদিত, একুশে বই মেলা ২০২১ এ প্রকাশিত হয় 'কবিতার উঠোন' ( সংকলন)। উৎসব প্রকাশনি থেকে সাইদ আহমদের সম্পাদনায় একুশে বই মেলা ২০২১ এ প্রকাশিত হয় কাব্যশ্রী ও সর্বশেষ লেখকের 'জয়া' বইটি উৎসব প্রকাশনি থেকে সাইদ আহমদের প্রকাশনায় একুশে গ্রন্থমেলা ২০২২ এ প্রকাশিত হয়।


x

সর্বশেষ সংবাদ