সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি খুবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের

 খুবি বঙ্গবন্ধু পরিষদ
বঙ্গবন্ধু পরিষদ  © লোগো

সম্প্রতি বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে পূজা মণ্ডপ ও হিন্দু-সম্প্রদায়ের বাড়ি-ঘরে হামলার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ। একই সাথে  হামলার ঘটনায় তীব্র ঘৃণা প্রদর্শন করে সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের দ্রুত বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ড. শেখ জুলফিকার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রকিবুল হাসান সিদ্দিকীর যৌথ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, বারো মাসে তেরো পার্বণের দেশ বাংলাদেশ, সম্প্রীতির দেশ বাংলাদেশ। বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল সম্প্রীতি-সৌহার্দ্যে সোনার বাংলা গড়ার। তাঁর চোখে মানুষে মানুষে কখনো প্রভেদ ছিল না। তিনি বাংলার সব শ্রেণির মানুষকে খুবই ভালোবাসতেন। বঙ্গবন্ধু যে অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখতেন, তা বাস্তবায়নে তিনি ১৯৭২-এর সংবিধানের চারটি মূলনীতির একটি করেছিলেন ‘ধর্মনিরপেক্ষতা’। তিনি সবসময় চেয়েছেন যে, ধর্মকে হাতিয়ার করে যেন কেউ বাংলাদেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করতে না পারে। 

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, বাংলাদেশের সম্প্রীতি বিনষ্টকারী গোষ্ঠী দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য যে জঘন্য কাজে লিপ্ত হয়েছে, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু পরিষদ তাদের এমন হীন কাজের প্রতি তীব্র ঘৃণা প্রদর্শন করে এবং দ্রুত বাংলাদেশের সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানায়।


মন্তব্য

x

সর্বশেষ সংবাদ