মেসের সিট দখল নিয়ে ইবির দুই শিক্ষার্থীর মারামারি

ইবি
ক্যাম্পাসের পাশে ত্রিবেণী এলাকায় একটি মেসে এ ঘটনা ঘটে  © টিডিসি ফটো

ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী মেসের সিট দখল নিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) দুই শিক্ষার্থীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে দিকে ক্যাম্পাসের পাশে ত্রিবেণী এলাকায় একটি মেসে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের পিছনে ত্রিবেণী এলাকায় এক মেসে রুম নিয়ে কয়েকজন বন্ধুসহ অবস্থান করছিলো বাংলা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ধ্রুব। এ মাসে সে মেস ছেড়ে চলে যায়। চলতি মাসের ভাড়া পরিশোধ থাকায় সে তার মার্কেটিং বিভাগের হাফিজ ও ফিন্যান্স বিভাগের সাকিবকে রেখে যায়।

পরে হাফিজ ও সাকিব ঐ রুম ভাড়া নেয়ার জন্য বললে ভাড়া দিতে সম্মতি হয়নি মেস মালিক। এ বিষয়ে মেস মালিক বলেন, আমি এ রুমের বিষয়ে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সেলিমের মাধ্যমে একজনকে আগেই কথা দিয়েছিলাম। পরে সেলিমের মাধ্যমে তার বন্ধু মামুন সেই রুমে উঠতে গেলে তাদের সাথে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে হাফিজ তার বন্ধুদের ডেকে এনে সেলিমকে মারধর করে। পরে সেলিমের বন্ধুরা আসলে আবারো হাতাহাতি হয় তাদের মাধ্যে।

এলাকাবাসী সূ্ত্রে জানা যায়, প্রথমে নিজেদের মধ্যে মারামারি করার পর মেস মালিকের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে হাফিজ ও তার বন্ধুরা মেস মালিকের মারার জন্য চড়ওয়া হয়। তখন এলাকাবাসীও তাদের শিক্ষার্থীদের মারার জন্য চড়ওয়া হলে ওখানকার স্থানীয় ও শিক্ষার্থীরা সমাধান করার চেষ্টা করে।

এ বিষয়ে হাফিজ বলেন, মেস মালিক প্রথমে আমাদের ভাড়া দিতে চেয়ে পরে আমাদের বাদ দিয়ে অন্যদের সেই রুমে উঠায়। আমরা এর প্রতিবাদ করতে গেলে সে আমাদের উপর চড়াও হয়। এছাড়া আমfদের বন্ধু এই মাসের ভাড়া পরিশোধ করেছে। কিন্তু মাস শেষ না হতেই এখানে আরেকজনকে উঠানো হয়।

এ বিষয়ে সেলিম বলেন, হাফিজ ও সাকিব মেসে মাদক সেবন করতো। তাই মেস মালিক তাদেরকে রুম ভাড়া দিতে অস্বীকৃতি জানায়। মেস মালিক আমাকে মামুন কে ঐ রুমে উঠাতে বলে। আমি তাকে সেখানে উঠাতে গেলে হাফিজ ক্ষীপ্ত হয়ে আমাকে মারধর করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হপয়ার পর শৈলকুপা থানায় যোগাযোগ করেছি। তারা ঘটনাটি সম্পর্কে খোঁজ খবর নিচ্ছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ