১৮ বছর বয়সীদের টীকার সিদ্ধান্ত সরকারের বড় সাফল্য

করোনা ভ্যাকসিন
১৮ বছর বয়সীদের টীকার সিদ্ধান্ত সরকারের বড় সাফল্য  © টিডিসি ফাইল ফটো

করোনা মহামারী প্রতিরোধে সারাদেশে গণটীকা কার্যক্রমের আওতায় আসছে ১৮ বছর বয়সীরাও। সরকারের এ সিদ্ধান্তকে বিরাট সাফল্য বলে মনে করছেন ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ ও রাজধানীর সরকারি সাত কলেজের সমন্বয়ক অধ্যাপক আইকে সেলিমউল্লাহ খোন্দকার। সম্প্রতি গণমাধ্যমের সাথে আলাপকালে সারাদেশে ১৮ বছরের উপর সকলকে টীকার আওতায় আনার সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় তিনি একথা বলেন।

অধ্যক্ষ সেলিম বলেন, টিকা দেওয়া শেষ না হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে বলে মনে হয় না৷১৮ বছর বয়সীদের টিকার আওতায় আনার সিদ্ধান্ত সরকারের বিরাট সাফল্য৷এই সিদ্ধান্তে আমি খুশি।

সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের করোনার টীকা প্রাপ্তির বিষয়ে তিনি বলেন, সাত কলেজের আবাসিক ও অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের করোনা ভাইরাসের টীকা নিশ্চিত করতে আমরা শিক্ষার্থীদের তালিকা সংগ্রহ করে প্রস্তুত রয়েছি৷ কোন কারনে যদি সরকারের ঐ সিদ্ধান্ত কার্যকরে বিলম্ব হয় তাহলে আমাদের শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দিতে হবে৷ অনেকে বলছে তালিকার তো প্রয়োজন হবে না ৷ আমি বলেছি, আমরা তালিকা প্রস্তুত করে রাখছি যদি প্রয়োজন হয় তাহলে সরবরাহ করতে পারব।

আলাপকালে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের অনলাইনে পরীক্ষা গ্রহণের সম্ভাবনা রয়েছে কি-না? এমন প্রশ্নের উত্তরে অধ্যক্ষ সেলিম বলেন, অনেকেই বলছে সাত কলেজে অনলাইনে পরীক্ষা নিতে৷এখন অনলাইনে পরীক্ষা নিলে সবাই তো অংশ নিতে পারবে না৷আমাদের জন্য এটা কঠিন হয়ে যাবে কারন এসব প্রতিষ্ঠানে অনেক প্রান্তিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করে৷

এছাড়াও চলমান লকডাউন উঠে গেলে এবং করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাক তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খুললেও স্থগিত পরীক্ষা শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান তিনি৷


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ