দেশে-বিদেশে চিকিৎসা দিয়েও বাঁচানো যায়নি মেহেদীকে

তানিন মেহেদী
তানিন মেহেদী  © টিডিসি ফটো

ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী তানিন মেহেদী মারা গেছেন। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকার ইবনে সিনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। মেহেদীর খালাতো ভাই মনির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মনির হোসেন জানান, দীর্ঘদিন ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন মেহেদী। এ পর্যন্ত তিন দফা পায়ে, বুকে ও ফুসফুসে মিলে তাঁর মোট আট বার অপারেশন হয়। দেশে ও দেশের বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েও মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন তিনি। মেহেদীর বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলায়। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী ছিলেন।

২০১৬ সালে তানিন মেহেদীর হাঁটুতে প্রথম টিউমার হয়। তখন অপারেশনও করা হয়। কিন্তু ২০১৮ সালে সেই টিউমার আবার দেখা দেয়। তখনই পরীক্ষায় তার শরীরে ক্যানসারের জীবাণু পাওয়া যায়। পরে তাকে মুম্বাইয়ের টাটা হাসপাতালে সার্জারি, প্লাস্টিক সার্জারি, রেডিওথেরাপিসহ প্রায় তিন মাস চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে দেশে ফেরেন মেহেদী।

মনির জানান, তবে হাঁটুর অপারেশনের কারণে অনেকটা খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটতে হতো। দীর্ঘদিনের চিকিৎসা, সংগ্রামের পর দুঃখ ভুলে নতুন উদ্যম নিয়ে বাঁচার স্বপ্ন দেখেন মেহেদী। কিন্তু ফের তার শরীরে ক্যানসার ধরা পড়ে। তবে হাঁটুর ক্যানসার এবার চলে আসে ফুসফুসে। আবার নতুন করে শুরু করতে হয় চিকিৎসা। এরপর চিকিৎসা চললেও দিন দিন তাঁর অবস্থার অবনতি হতে থাকে।

তার মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এক ফেসবুক লাইভে মেহেদীর আত্মার মাগফিরাতের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক কাজী আনিছ। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি মেহেদীর শোকতপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ