এক বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬ ভুয়া পিএইচডিধারী শিক্ষক

জালিয়াতি
প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়  © ফাইল ফটো

রাজধানীর প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ছয় শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনুমোদনহীন ও ভুয়া পিএইচডি অভিযোগ উঠেছে। ভুয়া এসব সনদের মাধ্যমে এ উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বছরের পর বছর শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে এই সব শিক্ষক। শিক্ষকরা যে প্রতিষ্ঠান থেকে পিএইচডি ডিগ্রি নিয়েছেন, সেগুলোর কোনটার অস্তিত্ব নেই আবার বৈধতাই নেই। কেউ আবার অনুমোদনহীন প্রতিষ্ঠান থেকে অর্থের বিনিময়ে সংগ্রহ করেছেন পিএইচডির সনদ।

ভুয়া পিএইচডি ডিগ্রিধারী শিক্ষকদের ৩ জন হলেন- অধ্যাপক রেবেকা সুলতানা, সহযোগী অধ্যাপক শিকদার মো. আনোয়ারুল ইসলাম ও মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম। এছাড়া দুজন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হেলাল উদ্দিন ও আবু সাঈদ মিয়া। বাকি একজন ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান আতিকুর রহমান খান (এআর খান)।

এদিকে ভুয়া পিএইচডি ডিগ্রিধারী শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে দ্রুতই ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সম্প্রতি দায়িত্ব নেয়া প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মেসবাহ কামাল বলেন, ভুয়া ডিগ্রি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করার কোনো সুযোগ নেই। এটি একদিকে যেমন অপরাধমূলক, অন্যদিকে গুণগত উচ্চশিক্ষারও অন্তরায়। কয়েকজন শিক্ষকের পিএইচডি ডিগ্রির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষস্থানীয়দের নিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হয়।

তিনি আরও জানান, অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সভায় সোমবার ভুয়া পিএইচডি ডিগ্রিধারী শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। খুব দ্রুতই সেটি বাস্তবায়ন হবে।


মন্তব্য

x

সর্বশেষ সংবাদ