করোনায় মা-ভাইয়ের মৃত্যু, হতাশায় বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রের আত্মহত্যা

করোনা ভাইরাস
হতাশাগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা  © সংগৃহীত

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মা ও ভাইয়ের মৃত্যু হয় আলিফ নামের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীর। পাশাপাশি এই ভাইরাসে তার পরিবারের সবাই আক্রান্ত। রবিবার (১ আগস্ট) রাতে রাজধানীর গুলশান-২ এর সিকদার হাসপাতালের পাশের একটি সাত তলা ভবনের ছাদ থেকে তিনি লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ওই শিক্ষার্থীর মা-ভাই মারা গেছেন। তাই ডিপ্রেশন থেকে এ ঘটনা ঘটতে পারে। তারা ওই ভবনের তিন তলায় থাকতেন।

গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শামিম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনার সময় তারা পাশের মোড়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। হঠাৎ একটা শব্দ শুনতে পান তারা। ঘুরে পেছনে ফিরে তারা দেখতে পান কেউ একজন উপর থেকে রাস্তায় আচড়ে পড়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে তারা জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দেয়। এর পরে গুলশান থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে।

গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক শামিম বলেন, আলিফের পরিবারের কাছ থেকে জানতে পারি, তার ভাই মারা গেছে জুলাই মাসের ২৬ তারিখে। তার পরের দিন মা মারা গেছেন। তার বাসার সবাই করোনা পজেটিভ। সব মিলিয়ে তিনি হতাশায় ডুবে যান। সে ঘটনার দিন রাত সাড়ে ৮টায় বাসা থেকে বের হয়ে যান। এর পরেই হতাশাগ্রস্ত হয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যায়।

আলিফ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। তবে পরিবারের সবাই করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তার বিস্তারিত পরিচয় পুলিশ এখনও জানতে পারেনি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ