প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আঙিনা যেন শিশু পার্ক, শিক্ষার্থীরা খেলছে আর পড়ছে

করোনা
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দৃশ্য  © টিডিসি ছবি

জায়নুফা আক্তার (১০) তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। একই শ্রেণিতে পড়ে আয়েশা সিদ্দিকা (৯)। একপাশে জায়নুফা অপরপ্রান্তে আয়েশা বসে ব্যালান্সিং খেলে যাচ্ছে একমনে।

তানভীর উল হোসেন (১২) পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ছে। স্লিপারে তানভীর তার বন্ধুদের সাথে অবিরত উঠানামা করে যাচ্ছে।সম্প্রতি লোহাগাড়া উপজেলার মধ্য পুটিবিলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গেলে এমনই দৃশ্য দেখা যায়। ক্লাসের বিরতিতে ছাত্র-ছাত্রীরা মনের আনন্দে খেয়ে উক্ত বিদ্যালয়ে স্থাপন করা স্লিপার, ব্যালান্সিং, ল্যাডার কিংবা অন্যান্য খেলনা সামগ্রী দিয়ে খেলে চলেছে।

আরও পড়ুনঃ গুচ্ছে চূড়ান্ত আবেদনের সময় শেষ

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন মানিক ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, শিশুরা আনন্দে স্কুলে আসছে, হাসছে, খেলছে আর পড়ছে। আমাদের বিদ্যালয় যেন এক মিনি শিশু পার্ক।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাহিদুল ইসলাম দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে জানান, সরকারি বরাদ্দ দিয়ে খেলনা সামগ্রী স্থাপন করার পর একসময়ের অনিয়মিত ছাত্র-ছাত্রীরা নিয়ম করে এখন বিদ্যালয়ে আসছে।

তিনি বলেন, করোনা পরবর্তীতে সারা দেশে শিক্ষার্থী উপস্থিতি কমে গেলেও আমার বিদ্যালয়ে উপস্থিতি খুবই সন্তোষজনক।

লোহাগাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার আকরাম হোসেন ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদরে ঝরে পড়া রোধ ও উপস্থিতি বাড়াতে নিড বেইজড প্লেয়িং এক্সেসরিজ প্রকল্পের আওতায় লোহাগাড়া দশটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খেলনা সামগ্রী হিসেবে স্লিপার, দোলনা, ব্যালান্সিং স্থাপন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে লোহাগাড়ার অন্যান্য বিদ্যালয়গুলোতে এসব খেলনা সামগ্রী স্থাপন করা হবে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ