পাইলটিং ছাড়াই চালু হচ্ছে প্রাথমিকের নতুন শিক্ষাক্রম

পাইলটিং
ক্লাস নিচ্ছেন প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা  © ফাইল ছবি

আগামী বছর প্রাথমিকে নতুন শিক্ষাক্রম চালু করতে যাচ্ছে সরকার। পাইলটিং ছাড়াই প্রাথমিকে এই শিক্ষাক্রম চালু হতে যাচ্ছে। এছাড়া প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রম চালু করার কথা থাকলেও পাইলটিং না হওয়ায় কেবলমাত্র প্রথম শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রম চালু করা হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ফেব্রুয়ারি থেকে ৬৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পাইলটিং শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আগের সচিব নতুন শিক্ষাক্রমের বই তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ ছাড়ে গড়িমসি করেন। যেখানে জানুয়ারিতে অর্থ পাওয়ার কথা সেখানে নতুন সচিব আসার পর মে মাসে প্রয়োজনীয় অর্থ পায় জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। এরপর জুলাই-আগস্ট মাস থেকে পাইলটিং শুরু করার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু সেটাও সম্ভব হয়নি।

সূত্র জানায়, পাইলটিং করার জন্য কমপক্ষে ছয়মাস সময়ের প্রয়োজন। শিক্ষার্থীদের কমপক্ষে চারমাস পড়ানোর পর পরিমার্জনের জন্য আরও দুই মাস সময় প্রয়োজন। কিন্তু এখন পাইলটিংয়ে গেলে প্রয়োজনীয় সংস্কার শেষে জানুয়ারির প্রথম দিন শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেওয়া যাবে না। আবার যেহেতু আগামী বছর থেকে নতুন শিক্ষাক্রম চালু করার ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ঐকমত্য আছে, সেজন্য পাইলটিং ছাড়াই শুধু প্রথম শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রম চালু করা হবে।

জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান গণমাধ্যমকে বলেন, আগামী বছর পুরো সময়টাকেই আমরা পাইলটিং হিসেবে ধরছি। সেখান থেকে আমরা যেসব সমস্যা পাব তা ২০২৪ সালে ঠিক করা হবে। ইতিমধ্যে আমাদের নতুন শিক্ষাক্রমের বই তৈরি হয়েছে। শিক্ষক নির্দেশিকাও তৈরির কাজ শেষের পথে।

প্রসঙ্গত, আগামী বছর প্রথম, ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু হবে। ২০২৪ সালে দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি এবং অষ্টম ও নবম শ্রেণি এ শিক্ষাক্রমের আওতায় আসবে। ২০২৫ সালে পঞ্চম ও দশম শ্রেণি যুক্ত হবে। ২০২৬ সালে একাদশ ও ২০২৭ সালে দ্বাদশ শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রম চালু হবে। নতুন শিক্ষাক্রমে শিখনকালীন মূল্যায়নে জোর দেওয়া হয়েছে। প্রাক-প্রাথমিক পর্যায় থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত শতভাগ শিখনকালীন মূল্যায়ন থাকছে।


x

সর্বশেষ সংবাদ